আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করে চাঁদা চেয়ে ধরা

20
আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করে চাঁদা চেয়ে ধরা

দেশজুড়ে ডেস্ক:  লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে মোবাইল ফোনে এক প্রবাসীর স্ত্রীর আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করে চাঁদা দাবির অভিযোগে দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার (২০ জুলাই) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতাররা হলেন- উপজেলার বামনী ইউনিয়নের কাজির দিঘীরপাড় এলাকার মোহাম্মদ কালামের ছেলে এরশাদ হোসেন ও আবুল মোল্লার ছেলে ক্যাবল ব্যবসায়ী মো. মুরাদ।

এর আগে রোববার (১৯ জুলাই) বিকেলে কাজীর দিঘীরপাড় এলাকা থেকে পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করে। পরে রাতে ভুক্তভোগী প্রবাসীর স্ত্রী বাদী হয়ে গ্রেফতার দুইজনসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে রায়পুর থানায় মামলা করেন।

এ ব্যাপারে রায়পুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল জলিল বলেন, গ্রেফতার দুইজন আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তাদের কাছ থেকে প্রবাসীর স্ত্রীর আপত্তিকর ভিডিওটি উদ্ধার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ইন্টারনেট সংযোগ দেয়ার নামে ক্যাবল ব্যবসায়ী মুরাদ গত ১৫ জুলাই তার কর্মচারী মতিনকে দিয়ে কৌশলে প্রবাসীর স্ত্রীর আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করান। এরপর মুরাদসহ কয়েকজন ওই গৃহবধূকে অসামাজিক কাজের প্রস্তাব দেন। এতে রাজি না হওয়ায় ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন আসামিরা।

পরে স্থানীয় মাতব্বরদের মধ্যস্থতায় এক বৈঠকে ৮০ হাজার টাকা চাঁদা দেয়ার সমঝোতা হয়। ওই সময় একটি নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে ওই গৃহবধূর স্বাক্ষর নেয়া হয়। একপর্যায়ে মুরাদসহ তার লোকজন দুই লাখ টাকার কমে নেয়া হবে না বলে বৈঠক থেকে চলে যান।

এদিকে চাঁদা দাবির ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। পরে রোববার লক্ষ্মীপুরের সহকারী পুলিশ সুপার (রায়পুর ও রামগঞ্জ সার্কেল) স্পিনা রাণী প্রামাণিকের নেতৃত্বে কৌশলে চাঁদা দেয়ার কথা বলে ওই দুই আসামিকে কাজির দিঘীরপাড় এলাকায় ডেকে আনা হয়। পরে তাদেরকে গ্রেফতার করে থানায় নেয়া হয়। ওই সময় তাদের কাছ থেকে মোবাইল ফোনসহ দুটি মেমোরি কার্ড জব্দ করে পুলিশ।

আপনার মন্তব্য