চাল-ডালের পাইকারি আড়ত খুলেছেন সাকিব!

45
চাল-ডালের পাইকারি আড়ত খুলেছেন সাকিব!

খেলাধুলা ডেস্ক: মাস খানেক পরই আইসিসির নিষেধাজ্ঞামুক্ত হচ্ছেন সাকিব আল হাসান। এরপরই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে পারবেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। সবার জানা, ক্রিকেটে ফেরার জন্য বিকেএসপিএত নিবিড় অনুশীলনে ব্যস্ত সাকিব।

এমনকি সেখানে কি ধরনের অনুশীলন করছেন, সেটা পর্যন্ত জানা যাচ্ছে না। নিজে তো বটেই সাকিবের দুই কোচ সালাউদ্দিন এবং নাজমুল আবেদিন ফাহিমও মুখে কুলুপ এঁটে বসে আছেন।

ভক্তদের প্রত্যাশা, হয়তো সাকিব আল হাসান নিজেই তার অনুশীলনের ছবি প্রকাশ করবেন নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে। ভক্ত-সমর্থকরা লাইক আর কমেন্টসের বন্যায় ভাসিয়ে দেবেন সেই ছবি। কিন্তু আইসিসির নিষেধাজ্ঞার কারণে সাকিব কি করছেন, তার ছিঁটেফোটাও বাইরের কাউকে জানতে দিচ্ছেন না। পাছে না আবার ভিন্ন কোনো সমস্যা হয়ে যায়!

কিন্তু, ভক্তদের হতাশ করে সাকিব এমন এক ছবি নিজের ফেসবকু পেজে প্রকাশ করলেন, তা দেখে তো সবাই অবাক। একি ছবি প্রকাশ করলেন সাকিব? মাঠে খেলা কিংবা অনুশীলনের কোনো ছবি নয়, নিজের কোনো সেলফি-টেলফিও নয়, কিংবা স্ত্রী-কন্যার ছবিও নয়, সাকিব প্রকাশ করলেন কি না এমন এক ছবি, তা দেখে ভক্ত-সমর্থকরা কিছুটা হতাশ হওয়ার পাশাপাশি মজাও পেয়েছে।

প্রকাশিত ছবিতে সাকিবকে দেখা যাচ্ছে যেন তিনি একজন ধান-চাল-ডালের আড়ৎদার। ছোট সিন্ধুকের মত একটি ডেস্ক নিয়ে আড়তে হাসিমুখে বসে আছেন সাকিব। দেখেই মনে হচ্ছে যেন একজন পুরোপুরি পাইকারি ব্যবসায়ী। পাশে ছোট একটা টুলের ওপর রাখা চাল-ডাল-বাদামের স্যাম্পল। হাতে ধরা কলম দিয়ে কিছু লিখছেন।

অন্য হাতের প্রতিটি আঙ্গুলে একটি করে আঙটি এবং একটি ঘড়ি। গায়ে জড়ানো সাদা রঙয়ের একটি ফতুয়া। মাথার চুলগুলো পেছনে দিকে একটু লম্বা। তার অন্যপাশে পুরনো দিনের একটি টেপ রেকর্ডার এবং সারি করে সাজানো কিছু বস্তা।

হাসিমাখা মুখটা দেখেই মনে হচ্ছে, সাকিব একজন সুখি পাইকারি ব্যবসায়ী। কাস্টোমারের কোনো অর্ডার লিখছিলেন হয়তো। এমন সময় ক্যামেরার দিকে মুখ ফিরিয়ে একটু হাসি দিলেন। তখনই ক্লিক। উঠে গেলো ছবিটা।

সাকিব নিজেই তার ফেসবুক পেজে পোস্ট করেছেন ছবিটি। তবে কোনো ক্যাপশন দেননি। যদিও এরই মধ্যে ভক্তরা সবাই ধরে নিয়েছে, নিশ্চিত কোনো বিজ্ঞাপনের দৃশ্যে শ্যুটিং করতে গিয়েই এখানে ক্যামেরাবন্দী হয়েছেন তিনি। আর ছবিটা পোস্ট করে ভক্ত-সমর্থকদের অপেক্ষায় রেখেছেন, এর আসল রহস্য জানার জন্য।

🥳🥳🥳

Posted by Shakib Al Hasan on Friday, 25 September 2020

আপনার মন্তব্য