নাচোলে বিএনপির মনোনয়নের দৌড়ে এগিয়ে সূচি

10
নাচোলে বিএনপির মনোনয়নের দৌড়ে এগিয়ে সূচি

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: আসন্ন পৌর নির্বাচনে চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল পৌরসভায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি হতে মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার দৌড়ে অন্যান্যদের থেকে এগিয়ে রয়েছেন জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের জেলা শাখার প্রস্তাবিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাসুদা আফরোজ হক সূচি।

বরেন্দ্র অঞ্চলের তেভাগা আন্দোলনের নেত্রী ইলা মিত্র’র জন্য বিখ্যাত নাচোলকে আধুনিক, মডেল পৌরসভা হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা সমাজসেবক, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, নারী নেত্রী মাসুদা আফরোজ হক সূচি’র।

বর্তমানে প্রতিদিনই জনসাধারণের দ্বারে দ্বারে ঘুরে সৌজন্য সাক্ষাৎ ও বিভিন্ন সমস্যা-সম্ভাবনার কথা শুনছেন সূচি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (গোমস্তাপুর, নাচোল, ভোলাহাট) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আমিনুল ইসলামের ভাইবউ ও ২০১৯ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের বিএনপির দলীয় প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট মাসুদা আফরোজ হক সূচি বলেন, দল আমাকে মূল্যায়ন করলে অব্যশই আসন্ন নাচোল পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাবো এবং ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মেয়র পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো।

দলীয় মনোনয়নের ক্ষেত্রে নিজেকে এগিয়ে রাখার কারন হিসেবে তিনি আরো বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির সক্রিয় কর্মী হিসেবে কাজ করছি।

মহিলা দল, যুব দল, ছাত্র দলসহ বিএনপির সকল সহযোগী সংগঠনের সাথে কাজ করেছি। এমনকি ইতোপূর্বে যতগুলো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে, তার সবগুলোতেই সক্রিয়ভাবে দলকে বিজয়ী করতে ভূমিকা পালন করেছি।

এছাড়াও গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের গোমস্তাপুর, নাচোল, ভোলাহাট ৩ থানার বিএনপির প্রধান নির্বাচনী এজেন্টের দায়িত্ব অত্যান্ত সাহসিকতা ও কর্মনিষ্টার সাথে পালন করেছি।

তিনি জানান, সারাদেশে বিএনপি মাত্র ৬টি আসনে জয়লাভ করেছে, তারমধ্যে আমার ও দলের নেতাকর্মীদের দিনরাতের পরিশ্রম ও সর্বোচ্চ প্রচেষ্টায় প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট হিসেবে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নিকট চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনকে বিজয় উপহার দিতে সমর্থ হয়েছি।

তাই আমার পূর্ব অভিজ্ঞতা ও কর্মদক্ষতা মূল্যায়ন করলে এবং সঠিকভাবে দলীয় সিদ্ধান্ত হলে ইনশাআল্লাহ বিএনপির দলীয় মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচনে বিজয়ী হবো।

জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের জেলা শাখার প্রস্তাবিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাসুদা আফরোজ হক সূচি বলেন, নাচোল বরেন্দ্র অঞ্চলের একটি অবহেলিত পৌরসভা।

গত কয়েক দিনে সৌজন্য সাক্ষাতে গিয়ে দেখেছি, নাচোল পৌরসভায় রাস্তায় বাতি নেই, ড্রেনেজ, রাস্তা-ঘাট, কালভার্টের বেহাল দশা, এমবকি ট্যাক্স নির্ধারন ও আদায়েও নানা অব্যবস্থাপনা।

সবসময় জনসাধারণের সাথে ছিলাম, এখন আছি ও আগামীতেও থাকতে চাই। সে লক্ষ্যে সৌজন্য সাক্ষাতে জনসাধারণের নানা সমস্যার কথা শুনেছি এবং এসব সমস্যা দূর করে মেয়র নির্বাচিত হলে নাচোল পৌরসভাকে আধুনিক, মডেল পৌরসভা হিসেবে গড়ে তুলবো ইনশাআল্লাহ।

আপনার মন্তব্য