নিহত রাখালের মরদেহ ভেসে উঠলো পদ্মায়

15
মৃতদেহ ধর্ষণের রহস্য বেরিয়ে এলো যেভাবে

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর পদ্মা নদীতে মো. সনি (২২) নামের এক গরুর রাখালের মরদেহ ভেসে উঠেছে। মরদেহে গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে।

এ থেকে ধারণা করা হচ্ছে তাকে গুলি করেছে পদ্মায় ফেলে দিয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষি বাহিনী (বিএসএফ)।

শনিবার দুপুরে জেলার পবা উপজেলার গহমাবোনা এলাকার বিপরীতে ভারতীয় সীমান্তসংলগ্ন পদ্মা নদীতে সনির মরদেহ ভাসতে দেখেন স্থানীয়রা।

খবর পেয়ে স্বজনরা মরদেহ উদ্ধার করে বাড়িতে নেন।

নিহত সনি পার্শ্ববর্তী গোদাগাড়ী উপজেলার বিয়ানাবোনা গ্রামের গোলাম রসুল বেনুর ছেলে। গত বৃহস্পতিবার রাত থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন।

পরিবারের দাবি, গোদাগাড়ীর খরচাকা সীমান্ত থেকে বিএসএফ ধরে নিয়ে যায় সনিকে।

ওই সময় তার সহযোগী একই গ্রামের মো. খোকার ছেলে।রাসেলকে লক্ষ্য করে গুলি করে বিএসএফ। রাসেল গুলিবিদ্ধ অবস্থায় রাজশাহীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এদিকে, এনিয়ে শুক্রবার ভারতের টিকলির চর ও চর লবণগোলা ক্যাম্পের বিএসএফের সঙ্গে পতাকা বৈঠক করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

তবে বিএসএফ কাউকে ধরে নিয়ে যাওয়া বা গুলি করার কথা অস্বীকার করে। এর একদিন পর নদীতে সনির লাশ ভেসে উঠল।

তবে সনির মরদেহ উদ্ধারে অংশ নেয়া স্থানীয়রা জানিয়েছেন, মরদেহে পচন ধরেছিল। তারপরও গুলির চিহ্ন স্পষ্ট।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য লিটন হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর রাসেল ও সনি পদ্মা নদী পার হয়ে গোদাগাড়ীর খরচাকা সীমান্তে গরু আনতে যান।

তখন বিএসএফ সনিকে ধরে নিয়ে যায়। হাতে গুলিবিদ্ধ হয়ে রাসেল পালিয়ে আসেন।

বিজিবির ১ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল তাজ বলেন, পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছিল, সনিকে বিএসএফ নিয়ে গেছে। তাই আমরা ভারতের দুটি ক্যাম্পের বিএসএফের সঙ্গে পতাকা বৈঠক করেছিলাম।

বিএসএফ আমাদের বিষয়টি নিশ্চিত করেনি। মরদেহ উদ্ধারের পর আবার নিহত ব্যক্তির বড় ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি বলছেন, জালে জড়িয়ে তার ভাইয়ের মৃত্যু হতে পারে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে গোদাগাড়ী থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, বিষয়টি নিয়ে খোঁজখবর নিচ্ছেন। এনিয়ে আইনত ব্যবস্থা নেয়ার কথাও জানিয়েছেন তিনি।

আপনার মন্তব্য