মান্দায় ইউএনওর হস্তক্ষেপে বন্ধ হলো স্কুল ছাত্রীর বিয়ে

20
মান্দায় ইউএনওর হস্তক্ষেপে বন্ধ হলো স্কুল ছাত্রীর বিয়ে

নওগাঁ: নওগাঁর মান্দা উপজেলার বারিল্যা গ্রামের মিম আক্তার (১২) নামে এক স্কুলছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আব্দুল হালিম । এ সময় মেয়ের বাবাকে জরিমানাও করা হয়েছে। বুধবার সকালে বিয়ে বন্ধ হয়।

মেয়েকে ধুমধাম করে বিয়ে দিতে আয়োজন চলছিলো মান্দার নুরুল্লাবাদ ইউনিয়নের বারিল্যা গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের বাড়িতে। হাতে মেহেদী, গায়ে হলুদ শেষ। আত্মীয়-স্বজন ও বরযাত্রীদের অ্যাপায়নসহ সব আয়োজনও প্রায় শেষ। শুধু বর আসতে বাকী।

এমন সময় বাল্যবিয়ে ঠেকাতে দলবল নিয়ে হাজির উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আব্দুল হালিম। এ সময় ইউএনওর নির্দেশে বন্ধ হয় স্কুল ছাত্রী মিম আক্তারের বাল্যবিয়ে।

মিম আক্তার উপজেলার নুরুল্লাবাদ ইউনিয়নের বারিল্যা গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে ও জোতবাজার আদর্শ বালিকা বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী। ঘটনাস্থলে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। এতে মেয়েকে বাল্যবিয়ে দেয়ার অভিযোগে বাবা আব্দুর রাজ্জাককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

জানা গেছে, স্কুল ছাত্রী মিমকে বিয়ে দেয়ার যাবতীয় সকল কাজ সম্পন্ন করে তার পরিবার। বুধবার সকাল থেকেই তাদের বাড়িতে এ নিয়ে চলছে ধুমধাম আয়োজন। এ সময় গোপনে সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেখানে পৌঁছে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেন।

জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আব্দুল হালিম বরেন্দ্রএক্সপ্রেস ডট কম ডট বিডিকে বলেন, বাল্যবিয়ের সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় বাল্য বিয়ে আয়োজনের অপরাধে মেয়ের বাবাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং পরবর্তীতে যেন গোপনে বিয়ে দিতে না পারে সেজন্য অঙ্গীকার নামায় স্বাক্ষর করানো হয়।

আপনার মন্তব্য