রাজশাহীতে ধর্ষণবিরোধী বিক্ষোভ-সমাবেশ, সতর্ক পুলিশ

12

স্টাফ রিপোর্টার: দেশের বিভিন্ন স্থানে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে রাজশাহী নগরীতে বিক্ষোভ-সমাবেশ হয়েছে। শুক্রবার পুলিশের পাহারায় এসব কর্মসূচি থেকে ধর্ষকদের বিচারের মাধ্যমে কঠোর শাস্তির দাবি উঠেছে।

জুমার নামাজের পর বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে ইসলামী দলগুলো। সাহেরবাজার বড় মসজিদ প্রাঙ্গন থেকে দুটি মিছিল বের করে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এবং সর্বস্তরের ইমাম ও ওলামা মাশায়েখ। মিছিল দুটি নগরীর প্রধান সড়ক প্রদিক্ষণ শেষে একই স্থানে শেষ হয়। পরে সেখানে সমাবেশ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

মিছিলের আগে থেকে পাহারা দেয় পুলিশ। মিছিলে নেতৃত্ব দেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের রাজশাহী নগর শাখার সভাপতি শফিকুল ইসলাম। বক্তব্য দেন- ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নেতা তাজুল ইসলাম, ফয়সাল হোসেন মনি, তারিফ উদ্দীন, বোরহান উদ্দীন প্রমুখ।

এর আগে সকালে দেশব্যাপী ধারাবাহিক ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদে নগ্ন পদযাত্রা করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ফরিদ খান। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে তিনজন শিক্ষার্থীকে নিয়ে তিনি এই খালি পায়ে এই যাত্রা শুরু করেন।

তার এই পদযাত্রা নগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে অবস্থান নিয়ে তিনি সচেতনতামূলক বার্তা দেন। অধ্যাপক ফরিদ খান বলেন, আমরা চাই ধর্ষণমুক্ত একটি সমাজ। সামাজিক আন্দোলন ছাড়া এটি সম্ভব নয়। নারীদের প্রতি সম্মান জানাতেই আমার এই নগ্ন পদযাত্রা।

এদিকে, নগরীতে পুলিশের বাধায় শিক্ষার্থীদের ধর্ষণবিরোধী একটি সমাবেশ পণ্ড হয়ে গেছে। সকালে শিক্ষার্থীরা মহানগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে এই সমাবেশ করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু নগরীর বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মনসহ পুলিশের একটি দল গিয়ে তাদের সরিয়ে দেয়।

আপনার মন্তব্য