সমন্বয়হীনতায় মূল্যহীন চামড়া!

11
দাম কম হলেও চামড়া নষ্ট হয়নি- তদারক দলের দাবি

জাতীয় ডেস্ক: হাজার হাজার পিস চামড়া নষ্ট হচ্ছে। ঢাকার বাইরে থেকে পোস্তায় আসা ব্যবসায়ীরা এমন কথা জানালেও বাণিজ্য সচিবের দাবি, কোনো চামড়া অবিক্রিত থাকবে না।

এমনকি এবার কোনো সিন্ডিকেট নেই বলেও জানান তিনি। তবে, পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে কোরবানির চামড়া ব্যবসায় ধস নামার পেছনে সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার অভাবকে সামনে আনছেন বিশ্লেষকরা।

প্রতিবারের মতোই এবারও কোরবানির আগ দিয়ে ঠিক করে দেয়া হয় ঢাকায় ও ঢাকার বাইরে কত দামে বিক্রি হবে পশুর চামড়া। তবে, গতবারের চেয়ে এবার দাম বেশ খানিকটা কমিয়ে নির্ধারণ করা হয়।

সরকারিভাবে পশুর চামড়ার দাম কমানোর কারণ হিসেবে বাণিজ্যমন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয় দরদামের কারণে আগে অনেক চামড়া নষ্ট হয়েছে, এবার যেন এমন অভিজ্ঞতা না হয়। 

তবে, ২য় বৃহত্তম রপ্তানি খাতের চামড়া ব্যবসায় ধস ঠেকাতে ‘দাম কম’ তত্ত্বের যে ধারায় হেঁটেছে সরকার বাস্তবে সেপথে ঠেকানো যায়নি বিপর্যয়। দেশের কাঁচা চামড়ার সবচেয়ে বড় পাইকারি আড়ৎ পুরান ঢাকার পোস্তায় চামড়া বিক্রি করতে এসে হতাশ হন মৌসুমী ব্যবসায়ীরা।

নরসিংদী থেকে চামড়া নিয়ে আসা এক ব্যবসায়ী জানান, ঈদের দিন (১ আগস্ট) বিকেল ৫টার দিকে তিনি চামড়া নিয়ে রওনা হন পোস্তার উদ্দেশ্যে। কিন্তু রাস্তায় যানজটে ঠেলে এখানে আসতে আসতে বেজে যায় রাত সাড়ে ১২টা।

পরদিন (২ আগস্ট) বিকেল পর্যন্তও তিনি পোস্তাতেই আছেন চামড়া বেচা শেষ করতে। যেসব চামড়া কিনেছনে ৫শ’ পৌনে ৫শ’ করে; আড়ৎদারদাররা সেসব চামড়ার দাম বলছেন আড়াইশো, তিনশো সাড়ে তিনশো করে।

ঢাকার বাইরে থেকে আসা আরেক কাঁচা চামড়া ব্যবসায়ীর অভিযোগ, আড়তগুলোতে তারা পুরোটাই বাকিতে মাল (চামড়া) দিয়ে যান। কিন্তু পরে তারা এই টাকাটা কথামতো বুঝে পান না। দু’একজনের অভিযোগ এই দাম পড়তির কারণ ‘সিন্ডিকেট’।

বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, চামড়ার দাম নির্ধারণে অস্পষ্টতা আছে। নজরদারির অভাব ও সমন্বয়হীনতা তো পুরান ব্যাপার। আর এতেই মূল্যহীন হচ্ছে মূল্যবান এই সম্পদ।

অর্থনীতিবিদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এম আবু ইউসুফের পরামর্শ, সরকারিভাবে বিভিন্ন স্তরে দামটা ঠিক করে দিতে হবে। সরকার যে দামটা নির্ধারণ করে দেয় তা আসলে কোন পর্যায়ে কেনাবেচার জন্য?

এমন প্রশ্ন রেখে এই বাজার বিশ্লেষক বলেন, ঘোষণা করে দিলেই তো আর তা বাস্তবায়ন হয় না, এটা খুবই কঠিন একটা কাজ।

তবে দাম পড়ে যাওয়ার জন্য ব্যবসায়ীদের তাড়াহুড়োকে সামনে এনে বাণিজ্য সচিব জানান, লবণযুক্ত চামড়ারর যে দাম ঠিক করে দেয়া হয়েছে সেই দামেই কেনা হচ্ছে। তবে, লবণছাড়া চামড়ার দাম একটু কম হবে।

আর মাঠ পর্যায় থেকে ঢাকা পর্যন্ত কড়া নজরদারি করা হচ্ছে বলে দাবি করেন। তবে, সরকারের কাছে সিন্ডিকেটের কোনো তথ্য নেই বলে জানান সচিব। দু’একটি ঘটনা ব্যতিত সরকারের পরিকল্পনা মতোই এবার চামড়া কেনাবেচা হচ্ছে বলে দাবি তার।

ঘোষণা অনুযায়ী চামড়া বিপণনকেন্দ্রগুলোতে সরকারি মনিটরিং টিম থাকার কথা থাকলেও সরেজমিনে তা চোখে পড়েনি রাজধানীতে।

আপনার মন্তব্য