সার ও বীজ পাচ্ছেন রাজশাহীর ২৫ হাজার কৃষক

8
সার ও বীজ পাচ্ছেন রাজশাহীর ২৫ হাজার কৃষক

স্টাফ রিপোর্টার: চলতি বছরের প্রাকৃতিক দুর্যোগে কৃষি খাতে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে এবং রবি মৌসুমে ফসলের উৎপাদন বাড়াতে কৃষি পুনর্বাসন কর্মসূচির আওতায় রাজশাহীতে সার ও বীজ সহায়তা পাচ্ছেন ২৫ হাজার কৃষক।

রাজশাহী জেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের দেয়া তথ্যমতে, কৃষি পুনর্বাসন কর্মসূচির আওতায় জেলায় রবি ২০২০-২১ মৌসুমে ২৫ হাজার কৃষকের জন্য ২ কোটি ১৮ লাখ ৪৯ হাজার ৯০০ টাকার সার ও বীজ বরাদ্দ দিয়েছে সরকার।

জানা গেছে, রবি মৌসুমে গম, সরিষা, সূর্যমুখী, চীনাবাদাম, মসুর, খেসারি, টমেটো ও মরিচ ফসলের জন্য জেলার ৯ উপজেলার অধিক ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র এবং প্রান্তিক কৃষকদের বিনামূল্যে বীজ ও সার সহায়তা দেয়া হবে।

এর মধ্যে জেলার পবা উপজেলায় ১ হাজার ৩৫০ কৃষককে বীজ খাতে বরাদ্দ ১২ লাখ ২৯ হাজার ৮০০ টাকা, সার খাতে বরাদ্দ ১ লাখ ১৫ হাজার টাকা, অন্যান্য খাতে বরাদ্দ ৭১ হাজার টাকাসহ মোট আর্থিক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ১৪ লাখ ১৬ হাজার ৭৩০ টাকা।

উপজেলা অনুযায়ী, তানোর উপজেলায় ১ হাজার ৫০ কৃষককে বীজ খাতে ১১ লাখ ৬১ হাজার ৬০০ টাকা, সার খাতে ১ লাখ ৮৬ হাজার টাকা, অন্যান্য খাতে ৯৬ হাজার ৯০০ টাকাসহ মোট আর্থিক বরাদ্দ ১৪ লাখ ৪৪ হাজার ৩৯০ টাকা; মোহনপুরে ৪ হাজার ২০০ কৃষককে বীজে ১৯ লাখ ৬৩ হাজার ৮০০ টাকা, সার ৭ লাখ ৬৪ হাজার ৭৫০ টাকা, অন্যান্য খাতে ২ লাখ ৮৫ হাজার ৬৩০ টাকাসহ মোট আর্থিক বরাদ্দ ৩০ লাখ ১৪ হাজার ১৮০ টাকা।

বাগমারায় ১১ হাজার ৩০০ কৃষককে বীজ খাতে ৭৪ লাখ ৬৪ হাজার, সার খাতে ১৫ লাখ ৮২ হাজার, অন্যান্য খাতে ৮ লাখ ৫৬০ টাকাসহ মোট বরাদ্দ ৯৮ লাখ ৪৭ হাজার ৬০ টাকা; দুর্গাপুরে ১ হাজার ২৫০ কৃষককে বীজ খাতে ৮ লাখ ৮০ হাজার ৬০০ টাকা, সার খাতে ১ লাখ ৬২ হাজার ৫০০, অন্যান্য খাতে ৭৮ হাজার ৫০ টাকাসহ মোট আর্থিক বরাদ্দ ১১ লাখ ২১ হাজার ১৫০ টাকারে সহায়তা দেয়া হবে।

পুঠিয়া উপজেলায় দেড় হাজার কৃষককে বীজ খাতে আর্থিক বরাদ্দ ১০ লাখ ৮১ হাজার ৬০০ টাকা, সার খাতে আর্থিক বরাদ্দ ১ লাখ ৯২ হাজার ৭৫০ টাকা, অন্যান্য খাতে ৯৬ হাজার ৫৯০ টাকাসহ মোট আর্থিক বরাদ্দ ১৩ লাখ ৭০ হাজার ৯৪০ টাকা; গোদাগাড়ীতে ২ হাজার ৫০ কৃষককে ১৩ লাখ ৭৪ হাজার টাকার বীজ, ২ লাখ ৮৪ হাজার টাকার সার, অন্যান্য খাতে ১ লাখ ২৯ হাজার ৭১০ টাকাসহ মোট ১৭ লাখ ৮৮ হাজার ৩১০ টাকার আর্থিক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

চারঘাটে ৭৫০ কৃষককে ৬ লাখ ৭৩ হাজার টাকার বীজ, ৬৪ হাজার ২৫০ টাকার সার, অন্যান্য খাতে বরাদ্দ ৪৭ হাজার ৪৬০ টাকাসহ উপজেলায় মোট আর্থিক বরাদ্দ ৭ লাখ ৮৪ হাজার ৯১০ টাকা। বাঘা উপজেলায় ১ হাজার কৃষককে বীজ খাতে ৮ লাখ ৯৯ হাজার টাকা, সার খাতে ৯৮ হাজার ২৫০ টাকা, অন্যান্য খাতে ৬৪ হাজার ৯৮০ টাকসহ মোট আর্থিক বরাদ্দ ১০ লাখ ৬২ হাজার ২৩০ টাকা।

এ নিয়ে জেলায় ২৫ হাজার কৃষককে দেয়া মোট আর্থিক বরাদ্দের পরিমাণ দাঁড়ায় ২ কোটি ১৮ লাখ ৪৯ হাজার ৯০০ টাকা।

সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, কৃষি পুনর্বাসন কর্মসূচির আওতায় অগ্রাধিকার তালিকাভুক্ত একটি কৃষক পরিবার এক বিঘা জমির জন্য গমের ক্ষেত্রে প্রতি কৃষক ২০ কেজি বীজ, সরিষার ক্ষেত্রে এক কেজি বীজ, চীনাবাদামের ক্ষেত্রে ১০ কেজি বীজ, মসুরের ক্ষেত্রে ৫ কেজি, খেসারির ক্ষেত্রে ৮ কেজি বীজ, সূর্যমুখীর ক্ষেত্রে এক কেজি বীজ, টমেটোর ক্ষেত্রে ০.০৫ কেজি বীজ ও মরিচের ক্ষেত্রে ০.৩০ কেজি বীজ পাবেন। প্রত্যেক কৃষক সর্বোচ্চ ১০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি এমওপি সার সহায়তা হিসেবে পাবেন।

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের অতিরিক্ত উপপরিচালক উম্মে সালমা জানান, এবার কয়েক দফায় বন্যায় রাজশাহীর ৩৮ হাজার ৪৫০ কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ২৮ হাজার ৯০৩ দশমিক ৫ হেক্টর জমির ফসল তলিয়ে গেছে। যার আর্থিক ক্ষতি ৫১ কোটি ১৩ লাখ ৬১ হাজার টাকা।

তিনি বলেন, বন্যায় ক্ষতি পুষিয়ে নিতে এবং রবি মৌসুমে ফসলের উৎপাদন বাড়াতে পুনর্বাসন কর্মসূচির আওতায় জেলায় ৯ উপজেলার ২৫ হাজার কৃষককে ২ কোটি ১৮ লাখ ৪৯ হাজার ৯০০ টাকার সার ও বীজ সহায়তা দিচ্ছে সরকার।

একই সঙ্গে ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধিতে প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় রবি মৌসুমের জন্য সার ও সাত প্রকার বীজ বাবদ ২ কোটি ৩৩ লাখ ৪৩ হাজার ৮০০ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। এতে জেলার ৯ উপজেলার ২১ হাজার ৪০০ কৃষক এসব সহায়তা পাবেন।

আপনার মন্তব্য