স্টাফ রিপোর্টার, রাবি: শ্রেণিকক্ষে তালা। তাই গাছতলায় ক্লাস নিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আল মামুন।

 সোমবার (১৬ আগস্ট) বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর একাডেমিক ভবনের সামনেকার লিপু চত্বরে তিনি প্রতিকী এই ক্লাস নেন। 

করোনার পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খোলার প্রতিবাদে গাছতলায় ক্লাস নিলেন এই রাবি শিক্ষক।

 প্রতিকী এই ক্লাসে মিডিয়া ও ক্ষমতার সম্পর্ক পাঠ নেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের ১০ থেকে ১৫ জন শিক্ষার্থী। গাছতলায় পাতা বেঞ্চিতে বসে ক্লাস করেন তারা।

 এর আগে গত শুক্রবার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে স্বশরীরে ক্লাস নেয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন শিক্ষক আব্দুল্লাহ আল মামুন।

স্বশরীরে ক্লাস নেয়ার পক্ষে সংহতি জানিয়ে গাছতলার ক্লাসে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃ-বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক বখতিয়ার আহমেদ ও ফোকলোর বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আমিরুল ইসলাম কনক। 

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খোলার প্রতিবাদে মঙ্গলবার গাছতলায় ক্লাস নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষক আমিরুল ইসলাম। তিনি বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশের শিক্ষা খাত সবচেয়ে অবহেলিত। আমাদের ক্লাস মূলত একটা প্রতিকী। আমরা সরকারকে বার্তা দিতে চাই, স্বাস্থ্যবিধি মেনে যেন দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়। 

 রাবি শিক্ষক আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে যে সিদ্ধান্ত নিচ্ছে, এটাকে আমাদের অযৌক্তিক মনে হয়েছে। সরকার মাধ্যমিকের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখছে, অথচ তাদের ভ্যাকসিনের আওতায় আনছে না। তাহলে এর মানে কী? তাই এসব কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদে আমরা প্রতীকী ক্লাস নিয়েছি। এই ক্লাস অব্যাহত থাকবে।

করোনা পরিস্থিতিতে প্রায় ১৭ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। দফায় দফায় বন্ধের সময়সীমা বেড়ে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত দাঁড়িয়েছে।  করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলেই পর্যায়ক্রমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলবে সম্প্রতি এমন ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। ফলে ৩১ আগস্টের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে একধরণের অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে।

Leave a Reply