পঞ্চগড়ে ঘুরতে গিয়ে প্রেমিক ও তার বন্ধুর দ্বারা ধর্ষণের শিকার হয়েছে এক স্কুলছাত্রী (১৬)। পরে সাহায্য চেয়ে আরও কয়েজন কর্তৃক দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছে।

প্রিয় দেশ ডেস্ক: গাজীপুরের কাপাসিয়ায় দুর্বৃত্তরা শোবার ঘরে দাদিকে বেঁধে এক কিশোরীকে (১৩) তুলে নিয়ে ধর্ষণ করেছে। গত শুক্রবার রাতে উপজেলার টোক ইউনিয়নে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে।

পরে দাদির চিৎকারে মেয়েটির বাবা ও চাচাসহ প্রতিবেশীরা টের পেয়ে পাশের গ্রাম থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় মেয়েটিকে উদ্ধার করে। তবে এর আগেই দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়।

নির্যাতনের শিকার মেয়েটি পাশের গ্রামের একটি মাদরাসার সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী। তার বাবা দোকানি, মা প্রবাসী।

ধর্ষণের ঘটনায় নির্যাতনের শিকার মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে গতকাল রবিবার অজ্ঞাতপরিচয় তিনজনকে আসামি করে কাপাসিয়া থানায় মামলা করেছেন। তবে গতকাল রাত সাড়ে ৮টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ঘটনায় জড়িত কাউকে শনাক্তসহ গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

এদিকে মেয়েটির বাবা অভিযোগ করেন, এক প্রতিবেশীর সঙ্গে তাঁদের পূর্বশত্রুতা রয়েছে। তাঁদের ধারণা, এরই জেরে এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে।

কাপাসিয়া থানার ওসি মো. আলম চাঁদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ধর্ষণের ঘটনায় অভিযোগ পেয়ে পুলিশের একাধিক দল তদন্ত করছে। আশা করছি, শিগগিরই জড়িতদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তার করতে পারব।’

মেয়েটির বাবা জানান, উদ্ধারের সময় তাঁর মেয়ে ছিল রক্তাক্ত। নির্যাতনের পর দুর্বৃত্তরা তাকে (মেয়ে) ছেড়ে দিলে বিপর্যস্ত অবস্থায় বাড়ি ফিরছিল মেয়েটি।

মেয়েটি তাদের জানায়, পাশের গ্রামে নিয়ে একটি কাঁচা রাস্তার ওপর ফেলে একজন তার ওপর নির্যাতন চালায়। নির্যাতনকারীর পরনে ছিল শার্ট ও লুঙ্গি। অন্য দুজন নির্যাতনকারীকে সহায়তা করে।

Leave a Reply