চোর_গ্রেফতার-প্রিয় নওগাঁ

স্টাফ রিপোর্টার: মাঝ রাতে কৃষকের গোয়াল থেকে চুরি হয় গরু। মেঠোপথে যাওয়ার সময় চোরের সারা শরীর কাদাজলে একাকার। পথে পুলিশ দেখে গরু ছেড়ে ভোঁ-দৌড়। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি তাসরিফ হোসেন (২১) নামে যুবকের।

এদিকে গরুর মালিক টের পেয়ে এলাকায় খোঁজাখুজি শুরু করে। তাসরিফ হোসেনের সারা শরীর কর্দমাক্ত হওয়ায় সন্দেহমূলক তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে স্থানীয়রা। পরে তাকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। 

মঙ্গলবার সকালে নওগাঁর সাপাহার উপজেলার কোচকুড়িলিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গ্রেফতার তাসরিফ হোসেন একই গ্রামের মৃত আজিরউদ্দীন চৌধুরীর ছেলে।

সাপাহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারেকুর রহমান সরকার বলেন, উপজেলার কোচকুড়িলিয়া গ্রামের মৃত খয়বর আলীর ছেলে মমতাজ উদ্দীন প্রতিদিনের ন্যায় তার গোয়াল ঘরে তিনটি গরু রেখে দরজরা বন্ধ করে রাখেন।

মমতাজের ছেলে রাত ১২ টার দিকে বাড়ী ফিরে গোয়াল ঘরের দরজার চাটাই সরানো দেখতে পান। পরে গোয়াল ঘরে একটি গরু না থাকায় স্থানীয় লোকজনকে ডেকে খোঁজাখুঁজি শুরু করে।

এক পর্যায়ে উপজেলার নিশ্চিন্তপুর মোড় তাসরিফকে কর্দমাক্ত অবস্থায় দেখে এলাকাবাসীর সন্দেহ হয়। এসময় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে গরু চুরির বিষয়টি স্বীকার করে। তাসরিফ তাদের জানায় সরাইগাছী গরু নিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ দেখে গরু ছেড়ে পালিয়ে এসেছে।

ওসি আরও বলেন, তাসরিফের দেওয়া তথ্য মতে ভিকনা মোড়ে খোঁজ করার সময় পুলিশের তল্লাসি চৌকি (চেকপোস্টে) অবস্থানরত পুলিশের নিকট স্থানীয়রা ওই গরুটি পায়। 

মমতাজউদ্দিন বাদী হয়ে মঙ্গলবার সকালে থানায় তাসরিফের বিরুদ্ধে চুরির মামলা করেন। দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply