পরকীয়ার আসক্ত স্ত্রীকে তালাক দেয়ায় প্রবাসী খুন

প্রিয় দেশ ডেস্ক: পরকীয় আসক্ত স্ত্রীকে তালাক দেয়ায় খুন হয়েছেন প্রবাসী সোহেল। ফেনী শহরের নাজির রোডে শিউলি ক্ষিপ্ত হয়ে স্বামীকে বটি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেন। এরপর দুই সন্তান নিয়ে গভীর রাতে পালিয়ে যান শিউলি।

রোববার (২২ আগস্ট) প্রেস ব্রিফিংয়ে ফেনীর র‌্যাব-৭-এর কম্পানি অধিনায়ক স্কোয়াড্রন লিডার আবদুল্লাহ আল জাবের ইমরান এ তথ্য জানান। এর আগে শনিবার চৌদ্দগ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, গত ১৬ জুলাই সোহেল দেশে আসে। এর পর থেকে তার স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্ক নিয়ে প্রায়ই কথাকাটাকাটি হয়। এর জেরে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে সোহেল মৌখিকভাবে শিউলিকে তালাক দেন। একপর্যায়ে সোহেল খাটে বসে থাকা অবস্থায় শিউলি পেছন দিক থেকে বঁটি দিয়ে কুপিয়ে গলা কেটে খুন করেন তাকে।

তিনি আরো জানান, ঘটনার পর রাতেই দুই শিশুসন্তানকে নিয়ে ট্রেনে করে চট্টগ্রাম পালিয়ে যায় শিউলি। দিনভর ফটিকছড়িতে অবস্থানের পর রাতে কুমিল্লায় চাচার বাসায় আত্মগোপন করেন।

খবর পেয়ে সন্ধ্যা ৬টার দিকে র‌্যাবের একটি দল চৌদ্দগ্রাম এলাকায় তার চাচার বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। তার দেওয়া তথ্য মতে, হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ধারালো অস্ত্রটি নাজির রোডের চৌধুরী সুলতানা ভবন সংলগ্ন কচুরিপানার ডোবা থেকে উদ্ধার করা হয়।

শিউলিকে ফেনী মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। সে চৌদ্দগ্রাম থানার খাজুরিয়া গ্রামের আবদুল মজিদের মেয়ে। সোহেল একই উপজেলার গুণবতী ইউনিয়নের খাটরা গ্রামের আবুল কালামের ছেলে।

রবিবার দুপুরে ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ খানের আদালতে হাজির করে পুলিশ তার পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহত সোহেলের মা নিরালা বেগম বাদী হয়ে ফেনী মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

Leave a Reply