মাদকাসক্ত চিহ্নিত করতে সবখানেই ডোপ টেস্ট

প্রিয় দেশ ডেস্ক: মাদকাসক্ত চিহ্নিত করতে সকল পর্যায়ে ডোপ টেন্ট কার্যক্রম চালুর তাগিদ দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। কমিটির বৈঠকে সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বছরে একবার ডোপ টেস্টের সিদ্ধান্ত ঘোঘণা করায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীসহ সরকারকে ধন্যবাদ জানানো হয়।

রোববার (২৯ আগস্ট) বিকেলে জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি মো. শামসুল হক টুকু। বৈঠকে কমিটির সদস্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন, মো. হাবিবর রহমান, সামছুল আলম দুদু, কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, পীর ফজলুর রহমান, নূর মোহাম্মদ ও সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি শামসুল হক টুকু সাংবাদিকদের বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারোন নীতির বাস্তবায়ন চায় সংসদীয় কমিটি। এজন্য মাদকাসক্ত চিহ্নিত করতে সকল পর্যায়ে ডোপ টেস্ট চালুর সুপারিশ করা হয়। ইতোমধ্যে পুলিশ সদস্যদের ডোপ টেস্ট চলছে। কিন্তু সেটা ধীরগতিতে চলছে।

কমিটির পক্ষ থেকে গতি বাড়ানোর জন্য বলা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, ইতোমধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন, সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বছরে একবার ডোপ টেস্ট হবে। এ জন্য ধন্যবাদ জানানোর পাশাপাশি সর্বক্ষেত্রে ডোপ টেস্ট চালুর জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি অনুষ্ঠিত আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় আলোচনার উদ্ধৃতি দিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন সাংবাদিকদের জানান, বছরে একবার সরকারি চাকরিজীবীদের ডোপ টেস্ট করা হবে। পজিটিভ হলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও ডোপ টেস্টের আওতায় আসবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র কিংবা যারা ইউনিভার্সিটি-কলেজে অ্যাডমিশন নেবেন তাদেরও ডোপ টেস্ট করা হবে। এছাড়া শিক্ষকরাও এই ডোপ টেস্টের আওতায় আসবেন।

কমিটি সূত্র জানায়, বৈঠকে ডোপ টেস্ট বিষয়ে মন্ত্রীর ঘোষণায় মন্ত্রীসহ সরকারকে ধন্যবাদ জানানো হয়। এ সময় উচ্চতর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তির আগে ও চূড়ান্ত পরীক্ষায় অবতীর্ণ হওয়ার আগে ডোপ টেস্ট ও বিশেষ স্বাস্থ্য পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করার সুপারিশ দ্রুত কার্যকর করার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

চলমান মাদকবিরোধী অভিযান অব্যাহত রাখাসহ দেশে কিশোর অপরাধ বৃদ্ধি পাওয়ায় কথিত কিশোর গ্যাং এর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণসহ তাদের সংশোধনের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করা হয়। এছাড়া আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতিতে স্বাভাবিক রাখতে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে বলা হয়।

বৈঠকের শুরুতে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এসময় শোককে শক্তিতে রুপান্তরিত করে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়ন ও সমৃদ্ধি অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার ব্যক্ত করা হয়।

Leave a Reply