অন্যের স্ত্রীকে ভাগিয়ে বিয়ে, দলিল লেখক খুন

নাটোর: নাটোরের বড়াইগ্রামে এক যুবকের গোপনাঙ্গ কর্তন করে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মুন্নী বেগম (২৪) নামের এক নারীকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে উপজেলার জলশুকা গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি উপজেলার উপলশহর গ্রামের আব্দুল গফুরের স্ত্রী।

পুলিশ জানায়, সোমবার (৭ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টার দিকে ধারালো ছুরি দিয়ে উপজেলার সোনাপুর গ্রামের বিরাজ উদ্দিনের ছেলে জহুরুল ইসলামের (৩৫) গোপনাঙ্গ কেটে দেন ওই নারী। রাতেই তাকে প্রথমে বড়াইগ্রাম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে রেফার করা হয়।

গ্রেফতার মুন্নী বেগমের মা গুলজান বেওয়ার ভাষ্যমতে, দাম্পত্য কলহের কারণে মুন্নী তার স্বামীর সংসার ছেড়ে বাবার বাড়িতে থাকতেন। এরপর থেকে প্রতিবেশী জহুরুল ইসলাম তাকে প্রায়ই বাজে প্রস্তাব দিতেন। জহুরুল একজন মাদকাসক্ত।

তার নিয়মিত উত্ত্যক্তে বিরক্ত হয়ে পড়েন মুন্নী। সোমবার রাতে বাড়িতে এসে ফের তাকে কুপ্রস্তাব দেন জহুরুল। মুন্নী এর প্রতিবাদ করেন। এসময় তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এক পর্যায়ে জহুরুলের গোপনাঙ্গে ধারালো ছুরির আঘাত লাগলে তা কেটে যায়।

তবে পুলিশের দাবি, মুন্নী বেগম ও জহুরুল ইসলাম পূর্বপরিচিত। সোমবার রাতে জহুরুল ইসলামকে মোবাইল ফোনে তার বাবার বাড়িতে ডেকে নেন মুন্নী বেগম। পরে কৌশলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জহুরুলের গোপনাঙ্গ কেটে দেন এবং হত্যাচেষ্টা করেন।

এ বিষয়ে বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু সিদ্দিক জানান, এ ঘটনায় জহুরুলের বাবা বাদী হয়ে হত্যাচেষ্টা অভিযোগ এনে থানায় মামলা করেছেন। মুন্নী বেগমকে গ্রেফতার করে আজ দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply