নাটোর: নাটোরের নলডাঙ্গায় আরবি হরফে আল্লাহর নাম খোদাই করা একটি ঝিনুক নিয়ে চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে। ঘটনাটি জানাজানি হলে ঝিনুকটি একনজর দেখতে উপজেলার ভট্টপাড়া গ্রামে আজাদুল শেখের বাড়িতে উৎসুক মানুষের ভিড় জমে যায়। 

স্থানীয়দের দাবি, প্রাকৃতিকভাবেই এই ঝিনুকে খোদাই হয়েছে আল্লাহর নাম। এ নিয়ে অবশ্য সন্দেহও রয়েছে অনেকের।

ঝিনুকটি প্রথমে রাস্তায় কুড়িয়ে পান আজাদুল শেখের স্ত্রী আঙ্গুর বিবি। তিনি জানান, গত রোববার (১৩ মার্চ) সকাল আটটার দিকে বাড়ির পাশের মাঠ থেকে গবাদি পশুর জন্য ঘাস আনতে যান আঙ্গুর বিবি।

ঘাস কেটে ফেরার পথে রাস্তায় ঝিনুকটি পেয়ে বাড়িতে রেখে দেন। ঝিনুকটির মাঝে আরবি হরফে ইয়া-আল্লাহ নাম দেখে আশ্চর্য হন তিনি। পরে বিষয়টি তিনি তার স্বামীকে জানান।

মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) সকালে ঘটনাটি ব্যাপকভাবে জানাজানি হয় এলাকায়। তখন থেকেই প্রতিবেশীসহ আশপাশের গ্রামের লোকজন ঝিনুকটি দেখতে তাদের বাড়িতে আসছেন।

আজাদুল শেখ জানান, খবরটি ছড়িয়ে পড়ায় আশপাশসহ এলাকার বিভিন্ন বয়সের মানুষ ঝিনুকটি এক নজর দেখার জন্য ভিড় জমাচ্ছেন। ঝিনুকে আল্লাহর নাম লেখা দেখে অনেকেই ‘সুবাহান আল্লাহ’ ‘আলহামদুলিল্লাহ’ বলে জিকির করছেন। ‘অলৌকিক’ এই ঝিনুকটি বাড়িতেই সংরক্ষণ করবেন বলে জানান তিনি।

এ নিয়ে নলডাঙ্গা থানা জামে মসজিদের ইমাম আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, মহান আল্লাহ সর্ব অবস্থায় বিরাজমান। তিনি যে অসীম শক্তিধর তার প্রমাণ বিভিন্ন সময়ে দৃশ্যমান হয়।

অনেক সময় আমরা দেখি গাছের ছালে, পাথরের গায়ে, মাছের গায়ে কিংবা মাংসের টুকরায় মহান আল্লাহর নাম লেখা থাকে। একইভাবে ঝিনুকের মাঝে আল্লাহ নজির দেখিয়েছেন। মানুষকে বোঝাতে চেয়েছেন, তিনি সর্ব অবস্থায় বিরাজমান।

তবে এই ঝিনুকে প্রাকৃতিকভাবে আল্লাহর নাম খোদাই হয়েছে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় অনেকেই। যদিও বিষয়টির সত্যতা যাচাই করে দেখেনি যমুনা টেলিভিশন।

Leave a Reply