বোনকে বিয়ে, স্বামীকে ‘জেলের ভাত খাওয়াতে’ গিয়ে ধরা

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী: স্ত্রীর অনুমতি না নিয়ে তারই কিশোরী মামাত বোনকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন সোহেল বাবু নামের কাপড় ব্যবসায়ী। এনিয়ে ক্ষুদ্ধ হন স্ত্রী নাসরিন বেগম (২২)।

প্রতারক স্বামীকে হেরোইন দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে ডিবি পুলিশের কাছে ধরা পড়েন নাসরিন বেগম।

সোমবার (১৪ মার্চ) সন্ধ্যার দিকে চন্দ্রিমা থানাধীন আসাম কলোনীর বউবাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পরবর্তীতে ওই রাতেই মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সত্য ঘটনার উন্মোচন হওয়ায় গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) হাতে গ্রেপ্তার হন নাসরিন বেগম (২২) নামে এক নারী।

জানা যায়, স্ত্রী নাসরিন বেগমের কাছে গোপন করে দ্বিতীয় বিয়ে করেন মো. সোহেল বাবু নামে এক কাপড় ব্যবসায়ী। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে স্থানীয় এক মাদক ব্যবসায়ীর সহায়তায় বাড়িতে হেরোইন রেখে পুলিশে খবর দেন নাসরিন। কিন্তু ঘটনাটি গোয়েন্দা পুলিশের সন্দেহ হওয়ায় স্থানীয় ব্যক্তিসহ নাসরিন বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এতেই বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. আরেফিন জুয়েল বলেন, মো. সোহেল নাসরিন বেগমের প্রথম স্ত্রী।

সোহেল পেশায় পুরনো কাপড়ের ব্যবসায়ী। ছয় বছরের সংসারে তাদের এক সন্তানও আছে। এর মধ্যে নাসরিনের কাছে গোপন করে তারই (প্রথম স্ত্রীর) মামাতো বোনকে বিয়ে করেন সোহেল।

এতে ক্ষুব্ধ হয়ে স্থানীয় এক মাদক বিক্রেতার দ্বারা প্ররোচিত হয়ে ঘরে ১০ গ্রাম হেরোইন রেখে খবর দেন গোয়েন্দা পুলিশে। খবর পেয়ে গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে পোঁছে। তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মাদক জব্দ করা হয়।

তিনি আরও বলেন, পরে সোহেল ও স্থানীয়দের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, সে (সোহেল) মাদকের সঙ্গে কোনোভাবেই সম্পৃক্ত নয়। এমনকি সে সিগারেটও খায় না। এতে আমাদের সন্দেহ হলে সোহেলের স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে সে (নাসরিন) স্বীকার করে তারই ১৫ বছর বয়সী মামাতো বোনকে বিয়ে করে স্বামী সোহেল। এতে স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী রুবেল নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে মাদক নিয়ে গোয়েন্দা পুলিশ দিয়ে স্বামীকে জেলে পাঠানোর পরিকল্পনা করেছিলেন তিনি।

এ ঘটনায় চন্দ্রিমা থানায় নাসরিনের নামে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়েছে। এ ছাড়া এ ঘটনায় আরও কেউ জড়িত আছে কিনা সে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

Leave a Reply