নাটোর: নাটোরে ২ পুলিশ কনস্টেবলকে পিটিয়ে আহত করেছেন স্থানীয় যুবলীগ নেতাকর্মীরা।  বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে নাটোর শহরের কান্দিভিটুয়া এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। 

আহতরা হলেন-কনস্টেবল সেলিম হোসেন (২৫) ও কনস্টেবল হাসিব উদ্দিন (২৫)। দুজনেই নাটোর জেলা পুলিশ লাইন্স এ এসএএফ শাখায় কর্মরত।

আহত অবস্থায় দুজনকেই রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। বর্তমানে তারা হাসপাতালের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।এর আগে তাদের নাটোর সদর হাসপাতালে নেয়া হয়।

এ ঘটনায় নাদিম, জাকির, ময়েন এবং সাগর নামের ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। বাকি হামলাকারীদের আটকের চেষ্টা চলছে জানান পুলিশ কর্মকর্তারা।

খবর পেয়ে পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহাসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা তাদের দেখতে যান। 

জেলার পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা জানান, দুই পুলিশ সদস্য পুলিশ লাইন থেকে মোটর সাইকেল চালিয়ে শহরে কাজে এসেছিলেন। এসময় কান্দিভিটা এলাকায় ভিড়ের মধ্যে পুলিশ সদস্যর মোটরসাইকেলের সঙ্গে নাদিম নামে একজনের মোটরসাইকেলের ধাক্কা লাগে। 

পরে নাদিমসহ তার ৮-১০ জন সহযোগী পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে দুই পুলিশ সদস্যকে পিটিয়ে ও ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। তারা ওই দুই পুলিশ সদসকে ধারালো কিছু দিয়ে খুচিয়ে আহত করে।

পুলিশ সুপার আরও বলেন, পরে স্থানীরা তাদের উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ঘটনার পর ৪ জনকে আটক করে পুলিশ। বাকিরা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। পলাতকদের ধরতে পুলিশী অভিযান শুরু হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদের আটক করে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা।

এ বিষয়ে নাটোর জেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক রুহুল আমিন বিপ্লব বলেন, ‘পুলিশ সদস্যদের ওপর হামলাকারীরা যুবলীগের কোনো পদধারী নেতা নয়। তবে তারা যুবলীগের সদস্য হিসেবে পরিচিত।

হামলাকারীদেরকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে এবং তদন্ত করে প্রকৃত দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি করছি।

Leave a Reply