স্টাফ রিপোর্টার: নওগাঁর মান্দা উপজেলায় ভুট্টাখেত থেকে ইউসুফ আলী (১২) নামের এক শিশুর হাত বাঁধা মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

সোমবার (২১ মার্চ) দুপুরের দিকে উপজেলার গঙ্গারামপুর গ্রামের বুড়ির বিল থেকে তার মরদেহ উদ্ধার হয়।

ইউসুফ আলী উপজেলার কাঁশোপাড়া ইউনিয়নের ভরট্ট কাঠের ডাঙ্গা গ্রামের রেজাউল ইসলামের ছেলে। উপজেলার আন্দরিয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল সে।

পরিবার বলছে, রোববার (২০ মার্চ) দুপুরে ইউসুফকে মা তাকে মাছের তরকারি দিয়ে ভাত খেতে দেন। কিন্তু মায়ের কাছে মুরগির মাংস দিয়ে ভাত খাওয়ার জন্য জেদ ধরে সে। ছেলের আবদার পূরণ করতে তার মা শিরিনা আখতার মুরগির মাংস রান্না করতে শুরু করেন। 

রান্নার ওই সময় ইউসুফ বাড়ি থেকে বের হয়ে যায় এবং মাকে বলে আধা ঘণ্টা পর ফিরে এসে ভাত খাবে। কিন্তু বাড়ি থেকে বের হওয়ার অনেকক্ষণ পরও ছেলে ভাত খেতে বাড়ি না ফেরায় তার মা খোঁজ করতে শুরু করেন। সন্ধ্যা হয়ে গেলেও তার খোঁজ না মেলায় ইউসুফের হারিয়ে যাওয়া নিয়ে এলাকায় মাইকিংও করা হয়। 

শেষে সোমবার সকাল ১০টার দিকে পার্শ্ববর্তী গঙ্গারামপুর গ্রামের বুড়ির বিলের একটি ভুট্টাখেতে ইউসুফের মরদেহ দেখতে পান স্থানীয়রা। খবর পেয়ে দুপুর ১২টার দিকে মান্দা থানা-পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে।

মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুর রহমান জানান, হাত বাঁধা অবস্থায় ভুট্টাখেত থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ছাড়া তার বাঁ চোখ উপড়ে ফেলা হয়েছে। গোপনাঙ্গ কেটে ফেলা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, পূর্বশত্রুতার জেরে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুত করে ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এনিয়ে পুলিশ আইনত ব্যবস্থা নিচ্ছে বলে জানান ওসি।

Leave a Reply