গুমের উদ্দেশ্যে মরদেহ নিয়ে ঘুরছিল জিপ

নাটোর: গুমের উদ্দেশ্যে হযরত আলী নামের পঞ্চাশোর্ধ এক ব্যক্তির হাত-পা বাঁধা মরদেহ নিয়ে ঘুরছিল একটি বিলাশবহুল জিপ। নাটোরের বড়াইগ্রাম থেকে জিপটি জব্দ করে পুলিশ।

উপজেলার বনপাড়া বাইপাস চত্বর এলাকা থেকে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে জিপটি জব্দ করা হয়। পরে জিপ থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।এ সময় চালক মিজানুর রহমানকে আটক করা হয়।

আটক মিজানুর সাভারের আশুলিয়ার তাজ এন্টারপ্রাইজ নামে একটি ঝুট কারখানার স্বত্বাধিকারী। নিহত হযরত আলী রংপুরের বাসিন্দা।তিনি ঝুট কারখানার কর্মচারী ছিলেন।

নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা জানান, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে বনপাড়া বাইপাস এলাকায় তল্লাশি চালায় পুলিশ। এ সময় ঢাকা ছেড়ে আসা সচিবালয়ের ভুয়া স্টিকারযুক্ত টয়োটা লেক্সাস জিপের গতিবিধি সন্দেহ হলে তাতে তল্লাশি করা হয়।

এ সময় জিপের ব্যাকডালায় রাখা ওই ব্যক্তির হাত-পা বাঁধা মরদেহ দেখতে পায় পুলিশ সদস্যরা। তখন জিপটি জব্দসহ চালক মিজানুরকে আটক করা হয়।

এসপি বলেন, ‘প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মিজানুর জানিয়েছেন, নিহত হযরত তার ঝুট গোডাউনের কর্মচারী। মরদেহটি গুম করার উদ্দেশ্য ছিল তার। তবে কী কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে তা তদন্তে জানা যাবে। মিজানুরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।’

Leave a Reply