দেশের মানুষ সুখেই আছে-তথ্যমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী: তথ্য সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজকে দেশের প্রতিটি মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন হয়েছে। প্রত্যেক মানুষের আয় বেড়েছে। দেশের কোনো মানুষ এখন দুঃখে নেই, সব মানুষ আজ সুখে আছে।

বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) দুপুরে রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপির নেতারা বলেন দেশের মানুষ সুখে নেই আর জাতিসংঘ বলে সুখের সূচকে বাংলাদেশ সাত ধাপ এগিয়েছে। আসলে বিএনপির কাজ মিথ্যাচার করা, বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা। তাদের কথায় কেউ সাড়া দেয় না। কারণ দেশটা বদলে গেছে।

 তারা বলেছিল, আওয়ামী লীগ পদ্মা সেতু করতে পারবে না। রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করা হলে সুন্দরবন ধ্বংস হয়ে যাবে। কিন্তু আমরা নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করেছি আর রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রও হয়েছে, সুন্দরবনেরও কোনো ক্ষতি হয়নি। 

তিনি বলেন, এখন গ্রামের অবস্থা এমন পর্যায়ে পৌঁছে গেছে যে, দেখে চেনার উপায় নেই। গ্রাম শহরে পরিণত হচ্ছে। গ্রামেও কাঁচা রাস্তা নেই। কুঁড়েঘর আর দেখা যায় না। দেশে শতভাগ বিদ্যুতায়ন হয়েছে। এখন রাজশাহী আর ঢাকার মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। 

তথ্যমন্ত্রী বলেন, এখন শ্রমিকের মজুরি বেড়েছে। দেশের কোথাও পাঁচশ টাকার কমে এখন দিনমজুর পাওয়া যায় না। চট্টগ্রামে আটশ টাকার কমে দিনমজুর পাওয়া যায় না। শেখ হাসিনা আজকে দেশকে সেই জায়গায় নিয়ে গেছেন। সমগ্র পৃথিবী আজ বাংলাদেশের প্রশংসায় পঞ্চমুখ, সবাই শেখ হাসিনার প্রশংসা করছে।

হাছান মাহমুদ বলেন, অনেক সূচকে আমরা আজকে ভারতকে পেছনে ফেলেছি। এখন পাকিস্তানের মিডিয়ায় বাংলাদেশের প্রশংসা করা হয়। সব সূচকে আজকে আমরা পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে গেছি। আর এসব সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের করণেই।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবার কথা ভাবেন। তিনি বয়স্ক ভাতা, বিধাব ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, স্বামী পরিত্যাক্তা নারীদের জন্য ভাতা ও মাতৃত্বকালীন ভাতা চালু করেছেন।

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ইদানিং কিছু কিছু পণ্যের দাম বেড়েছে, এটি সারা পৃথিবীতেই বেড়েছে। আমাদের দেশেও কিছুটা বেড়েছে কিন্তু তুলনামূলক কম। তবুও আমাদের প্রধানমন্ত্রী এক কোটি পরিবারকে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে স্বল্পমূল্যে পণ্য দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন। এটি অব্যাহত থাকবে, যাতে সাধারণ মানুষের কষ্ট না হয়।

সম্মেলনে স্থানীয় সংসদ সদস্য প্রফেসর ডা. মো. মনসুর রহমান, আয়েন উদ্দিন, সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য আদিবা আনজুম মিতা, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, বেগম আখতার জাহান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওদুদ দারা, বাঘা উপজেলা চেয়ারম্যান লায়েব উদ্দিন লাবলু প্রমুখ বক্তব্য দেন। 

দুর্গাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে সম্মেলনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় পর্যায়ের বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply