পোলে কর্মী, হঠাৎ বিদ্যুতে প্রাণ যায় যায়

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী: রাজশাহী নগরীতে নর্দার্ন ইলেক্ট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানির (নেসকো) বিদ্যুৎতিক পোলে কাজ করছিলেন কর্মীরা। হাঠৎই তাতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ায় স্পৃষ্ট হন দুই কর্মী। কিন্তু অল্পে রক্ষা পেয়েছেন তারা।

বৃহস্পতিবার (৩১ মার্চ) দুপুরের দিকে নগরীর শ্রীরামপুর এলাকায় সিভিল সার্জনের বাংলোর কাছে এ দুঘটনা ঘটে।

আহত দুই কর্মী হলেন-আকবর আলী (৪০) ও শামিম হোসেন (৪৫)। দুজনেই রাজশাহীর কাটাখালি এলাকার বাসিন্দা। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের হয়ে শ্রীরামপুর এলাকায় বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন সম্প্রসারণে কাজ করছিলেন তারা।

এর আগে গত ৬ ডিসেম্বর পাঠানপাড়া এলাকায় বৈদ্যুতিক খাম্বায় শ্রমিক থাকা অবস্থায় সংযোগ চালু করে দেওয়া হয়েছিল। এতে রেজাউল ইসলাম নামে নেসকোর এক হেলপার মারা যান। এর চার মাসের মাথায় একই ধরনের ঘটনা ঘটল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুই শ্রমিক ১১ হাজার কেভির সঞ্চালন লাইনের পোলে ওঠে কাজ করছিলেন। কাজ করা অবস্থায় আচমকা বিদ্যুতায়িত হন। ওই সমং সেফটি বেল্টের কারণে খাম্বায় ঝুলে পড়েন তারা।

তাক্ষনিক স্থানীয়রা বিদ্যুৎ অফিসে যোগাযোগ করেন। কিন্তু তাতে সাড়া মেলেনি। শেষে খবর দেয়া হয় ফায়ার সার্ভিসে। প্রায় আধাঘণ্টা পর পোলে ঝুলন্ত আহত কর্মীদের নামিয়ে আনেন উদ্ধারকর্মীরা। সেখান থেকে সোজা তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেয়া হয়।

নেসকোর রাজশাহীর বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী মাহমুদুল হাসান জানিয়েছেন, যখন কাজ শুরু করেন, তখন ১১ হাজার কেভির এই বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

কিন্তু পরে আচমকা লাইনে বিদ্যুৎ চলে আস। এই দুর্ঘটনায় দুই শ্রমিক আহত হয়েছেন। প্রাথমিক চিকিৎসার পর হাসপাতাল থেকে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

এবিষয়ে নেসকোর রাজশাহীর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শিরিন ইয়াসমিন সাংবাদিকদের জানান, দুর্ঘটনার পর বিষয়টি তিনি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। তদন্তে একটি কমিটিও হচ্ছে। তদন্ত প্রতিবেদন পেলে পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গত ৬ ডিসেম্বর নগরীর পাঠানপাড়া এলাকায় বৈদ্যুতিক পোলে কাজ করছিলেন নেসকোর কর্মী রেজাউল ইসলাম। সেদিনও হঠাৎই লাইনে বিদ্যুৎ চলে আসে। বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নেসকোর ওই কর্মী মারা যান। এর চার মাসের মাথায় একই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল।

Leave a Reply