হল থেকে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীকে বের করে দিল ছাত্রলীগ

রাবি: মধ্যরাতে হল থেকে সৌরভ নামের এক বাকপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে।

গত মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) রাতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) মতিহার হলে এ ঘটনা ঘটে। তবে শনিবার (২ এপ্রিল) দুপুরে বিষয়টি জানাজানি হয়।

এই ঘটনায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী হল প্রাধ্যক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এতে মতিহার হল ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রাজীব হোসেন ও তার অনুসারী হাবিবকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী সৌরভ বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।

হল সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি মতিহার হলের ৪৩৮ নম্বর কক্ষে সৌরভকে আসন বরাদ্দ দেয় হল প্রশাসন। কিন্তু ওই কক্ষে অবৈধভাবে থাকছিলেন ছাত্রলীগ কর্মী হাবিব, যাকে আসন বরাদ্দ দেওয়া হয় ২০৫ নম্বর কক্ষে। এদিকে সৌরভ মঙ্গলবার তার কক্ষে গিয়ে হাবিবের বিছানা সরিয়ে ওই আসনে নিজের বিছানা পাতেন।

রাতে হাবিব ফোন করে ডেকে নিয়ে বিছানা সরানোর বিষয়ে সৌরভকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এর কিছুক্ষণ পর হল ছাত্রলীগের সভাপতি রাজিবের নেতৃত্বে দু-তিনজন এসে তাকে সিট থেকে নামিয়ে দেন।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী সৌরভ বলেন, রাত সাড়ে ১১টার দিকে আমাকে হল থেকে বের করে দেওয়া হয়। বর্তমানে আমি বিনোদপুরে থাকছি।

২০৫ নম্বর কক্ষ ছেড়ে ৪৩৮-এ আসার বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত হাবিব বলেন, সিটটি আমার পরিচিত এক বড় ভাইয়ের। প্রভোস্ট স্যারের সঙ্গে কথা বলে আমি ওই রুমে উঠেছি। তার সঙ্গে কথা বলে সিট এক্সচেঞ্জ করব।

সিট থেকে নামানোর বিষয়ে হল ছাত্রলীগের সভাপতি রাজীব হোসেন বলেন, ৪৩৮ নম্বর সিটে আমাদের হাবিব নামে এক কর্মী আগে থেকে থাকত। ]

সৌরভ তার বিছানাপত্র সরিয়ে নিজের বিছানা রাখে। বিষয়টি জানার পর তার সঙ্গে আমরা কথা বলি। সে নিজেই চলে যায়, আমরা তাকে নামাইনি।

কিন্তু হাবিবের সিট তো অন্য কক্ষে বরাদ্দ, এটি জানতে চাইলে সভাপতি বলেন, হাবিব যে কক্ষে থাকত (২০৫ নম্বর) সেখানে আমাদের (ছাত্রলীগের) এক ছেলে থাকে।

হল প্রাধ্যক্ষ মুসতাক আহমেদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমাদের হিসাব অনুযায়ী ৪৩৮ নম্বর কক্ষটিতে একটি সিট খালি ছিল। তাই সৌরভ নামে ওই শিক্ষার্থীকে বরাদ্দ দিয়েছি। হাবিবের সঙ্গে সিটের বিষয়ে কোনো কথা হয়নি বলে জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, মধ্যরাতে সিট থেকে নামিয়ে দেওয়ার বিষয়টি শুনেছি। ছেলেটি আমার কাছে এসেছিল। অভিযোগ দিয়েছে। রোববার বিষয়টি নিয়ে বসব। অভিযোগ প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply