গোপন ক্যামেরায় গোসলের ভিডিও ধারণ, ১৩ বছরের জেল

দেশজুড়ে ডেস্ক: গাঁজা উদ্ধারের মামলায় দুই আসামি দোষ স্বীকার করায় সাজার পরিবর্তে এক বছর পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ার আদেশ দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি দুটি এতিমখানায় দুজন এতিমকে বাংলা অনুবাদসহ দুটি কোরআন শরিফ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

দুই আসামি হলেন মোহাম্মদ হোসেন ও আবদুর রহিম। সোমবার চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট কাজী শরীফুল ইসলাম এ রায় দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে আদালতের বেঞ্চ সহকারী ওসমান গনি বলেন, আসামিদের বিরুদ্ধে আগের কোনো মামলা নেই। সাধারণত এসব মামলায় এক বছরের সাজা হয়ে থাকে।

আসামিদের সংশোধনের জন্য শর্তসাপেক্ষ আদালত সাজার পরিবর্তে এ নির্দেশ দেন। প্রবেশন কর্মকর্তার নিয়ন্ত্রণে থাকবেন আসামিরা।

গত ২২ মে নগরের বন্দর থানার পোর্ট কলোনি এলাকা থেকে এক কেজি গাঁজাসহ মোহাম্মদ হোসেন ও আবদুর রহিমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ ঘটনায় তদন্ত শেষে গত ২৯ জুন অভিযোগপত্র দেয় বন্দর থানা–পুলিশ।

সোমবার এই মামলায় দুই আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর দিন ধার্য ছিল। শুনানিতে আসামিরা নিজেদের দোষ স্বীকার করেন।

এর আগে গত ১৪ জুন একই আদালত এক শিল্পীর করা মানহানির মামলায় চট্টগ্রামের সংগীতশিল্পী ফাহমিদা রহমানকে ছয় মাসের কারাদণ্ডের বদলে ছয় মাস পর্যন্ত বিনা বেতনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের গান শেখানোর নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনের তালিকাভুক্ত শিল্পী। ফাহমিদা চট্টগ্রাম ওয়াসায় চাকরি করেন।

রায়ে আদালত বলেন, আসামি একজন নারী ও সংগীতশিল্পী। তাই তাঁকে ছয় মাসের কারাদণ্ডের বদলে ছয় মাস পর্যন্ত বিনা বেতনে সংগীত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের গান শেখাতে হবে।

এ ছাড়া আসামিকে বাংলাদেশ টেলিভিশনে দুটি গান ফ্রি গাইতে হবে কিংবা দুটি গানের সম্মানী নিয়ে সেই টাকায় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বা তাঁকে নিয়ে লেখা বই কিনে তা জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে দিতে হবে। এসব কর্ম সম্পাদিত হয়েছে কি না, তা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আদালতকে জানাতে হবে।

Leave a Reply