স্ত্রীকে মৃত্যুর সংবাদ দিয়ে নবজাতককে বিক্রি!

স্টাফ রিপোর্টার: স্ত্রীকে মৃত্যুর সংবাদ দিয়ে ক্লিনিক থেকেই নবজাতককে বেচে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে রহিদুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। রোববার (২০ নভেম্বর) বিকেলে রাজশাহীর কাঁকনহাট পৌর এলাকা থেকে নবজাতককে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রহিদুল ইসলাম নওগাঁ জেলা সদরের হাঁসাইগাড়ি এলাকার বাসিন্দা। পরিবার নিয়ে তিনি নগরীর সিলিন্দা এলাকায় ভাড়া থাকতেন। আরও এক ছেলে ও মেয়ের জনক তিনি।

স্ত্রী জান্নাতুন খাতুনের দায়ের করা মামলায় রহিদুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। নবজাতক কিনে নেয়ায় গ্রেপ্তার হয়েছেন কাঁকনহাটের বাসিন্দা বিউটি বেগম (৩৭) ও তার সহযোগী নগরীর দাশপুকুর এলাকার তরিকুল ইসলাম (৪৫)।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নবজাতক উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়া রাজপাড়া থানার উপপরিদর্শক কাজল কুমার নন্দি। তিনি বলেন, রোববার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পুলিশকে ফোন দিয়ে স্বামী রহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে নবজাতক শিশুকন্যাকে বিক্রির অভিযোগ করেন জান্নাতুন খাতুন। এরপরই রহিদুল ইসলামকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদে নবজাতক বিক্রির তথ্য বেরিয়ে আসে।

এরপর গ্রেপ্তার করা হয় তরিকুল ইসলামকে। তাদের দুজনের দেয়া তথ্যের ভিত্তিকে গ্রেপ্তার করা হয় বিউটি বেগমকে। তার বাড়ি থেকেই উদ্ধার হয় নবজাতক।

গ্রেপ্তারকৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে এসআই কাজল কুমার নন্দি জানান, পেশায় দিনমজুর রহিদুল ইসলাম অভাবের তাড়নায় নবজাতককে বিক্রি করেছিলেন মাত্র ২৪ হাজার টাকায়।

কিন্তু স্ত্রীকে জানান তিনি মৃত সন্তান জন্ম দিয়েছেন। কিন্তু স্বামীর আচরণে গৃহবধূর সন্দেহ হয়। এরপরই বিষয়টি তিনি থানায় জানান।

প্রথমে তরিকুল ইসলাম নবজাতককে কিনে নেন। তার কাছ থেকে নবজাতককে নেন নি:সন্তান বিউটি বেগম। তিনি সন্তান কিনে নিয়ে মাতৃত্বের সাধ পুরণ করতে চেয়েছিলেন।

এনিয়ে আইনত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন নগরীর রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএসএম সিদ্দিকুর রহমান।

Leave a Reply