স্টাফ রিপোর্টার, দুর্গাপুর: রাজশাহীর দুর্গাপুর থানার ওসি খুরর্শিদা বানু কনা যোগদান করার পর থেকেই থানার থানান ভেতর ও বাহিরের দৃশ্যপট বদলে গেছে।

যেই থানা গত দুই বছর আগেও ছিল দালালদের কব্জায়, সেই থানাকে পুরোপুরি দালাল ও তদবির মুক্ত করেন খুরর্শিদা বানু কনা। যোগদান করার ঠিক পরের দিন থেকেই এই কাজের কাজটি করেন ওসি।।

এছাড়াও দুর্গাপুর থানা এলাকাতে কমেছে মাদক ব্যবসা ও সন্ত্রাস। শুরু হয়েছে দুর্গাপুর থানার আইন-শৃঙ্খলার উন্নতি, থানা এলাকায় কমেছে চুরি ও ছিনতাই।

ওসি খুরর্শিদা বানু কনা থানায় যোগদান করার পর থেকে এ পর্যন্ত কোন বাল্য বিবাহ হয়নি। থানায় হওয়া মামলা অভিযোগ সকল বিষয়ে কঠোর নজরদারীতে রাখেন ওসি নিজেই।

এসব ভালো কাজের জন্য ওসি খুরর্শিদা বানু কনা এখন দুর্গাপুরের সাধারণ মানুষের ভালোবাসার মানুষ।

ওসি খুরর্শিদা বানু কনার থানায় যোগদান করার পর থেকেই থানার এত পরিবর্তনের বিষয়ে দুর্গাপুরের সাধারণ মানুষের কাছে জানতে চাইলে তারা জানান ওসি খুরশিদা বানু কনা যোগদান করার আগে দুর্গাপুর থানার ওসি হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন আব্দুল মোতালেব হোসেন।

দুর্গাপুরের আইন-শৃঙ্খলার হয়ে গিয়েছিল অবনতি। থানায় যেকোনো সেবা নিতে গেলেই পড়তো দালালের লম্বা লাইন, সে কারণে টাকা ছাড়া কেউই পেত না পুলিশি সেবা।

মানুষের পুলিশের প্রতি হয়ে গিয়েছিল ভুল ধারণা কিন্তু ওসি খুরর্শিদা বানু কনা ২০১৯ সালের ২২ জুলাই দুর্গাপুর থানায় যোগদান করার পরেই সাধারণ মানুষের পুলিশের প্রতি ভেঙে যায় ভুল ধারণা।

এখন আর দুর্গাপুর থানায় সেবা দিতে গিয়ে আর কোন গরিব অসহায় মানুষকে পুলিশি সেবা না পেয়ে ঘুরে যেতে হয় না এসব কারণেই আজ দুর্গাপুরের সাধারণ মানুষের ভালোবাসার মানুষ ওসি খুরশিদা বানু কনা।

দুর্গাপুর থানার হঠাৎ এত পরিবর্তনের বিষয়ে ওসি খুরর্শিদা বানু কনার কাছে জানতে চাইলে তিনি ওসি বলেন, জনগণকে সেবা প্রদানের উদ্দেশ্যই এসব কাজ করে চলেছি।

সরকারের যে উদ্দেশ্য তা রাজশাহী পুলিশ সুপারের নির্দেশক্রমে তা বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করছি। আগামী দিনেও এমন সেবা যাতে করে যেতে পারি তার জন্য সকলের নিকট সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

Leave a Reply