[email protected] মঙ্গলবার, ২৭শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ই ফাল্গুন ১৪৩০

ছেলের কুড়ালের কোপে প্রাণ গেল বাবার

নিজস্ব প্রতিবেদক, জয়পুরহাট

প্রকাশিত:
২৩ নভেম্বার ২০২৩, ১৩:৩৫

ফাইল ছবি

জয়পুরহাটের কালাই উপজেলায় আব্দুল আলিম (৪৩) নামে এক ব্যক্তি ছেলের কুড়ালের কোপে আহত হওয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। ঘটনার পর পলাতক থাকা অভিযুক্ত ছেলে রেজভী (২১) ও পুত্রবধূ মোছা. জান্নাতিকে (১৯) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের বাড়ি উপজেলার উদয়পুর আনিপুকুর গ্রামে।

বুধবার (২২ নভেম্বর) সকালে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এর আগে গত সোমবার (২০ নভেম্বর) রাত দেড়টার দিকে ছেলে তার বাবাকে কুড়াল দিয়ে কোপ দেন।

থানা পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আব্দুল আলিম দুই বিয়ে করেন। তার প্রথম স্ত্রীর রেজভী নামে এক ছেলে রয়েছে। বাবার দ্বিতীয় বিয়ের পর রেজভী তার নানার বাড়ি একই জেলার পাঁচবিবি উপজেলার বাগজানা ইউনিয়নের শেকটা গ্রামে বসবাস করেন। তিনিও বিয়ে করেছেন। গত সোমবার সন্ধ্যায় রেজভী তার স্ত্রীকে নিয়ে বাবার বাড়ি আনিপুকুর গ্রামে আসেন।

রেজভী তার বাবার কাছে নিজের ভাগের জমিজমা দাবি করেন। এ নিয়ে ওইদিন গভীর রাতে তাদের বাবা-ছেলের মধ্য তর্ক-বিতর্ক হয়। একপর্যায়ে  রেজভী ঘরে থাকা কুড়াল দিয়ে তার বাবার গলায় কোপ দেন। এ সময় স্বামীকে বাঁচাতে আব্দুল আলিমের দ্বিতীয় স্ত্রী এগিয়ে আসেন। রেজভী তার সৎ মাকেও মারপিট করে রাতেই স্ত্রীকে নিয়ে পালিয়ে যান।

ঘটনাটি জানার পর প্রতিবেশীরা আব্দুল আলিম ও তার স্ত্রী তাছলিমাকে উদ্ধার করে প্রথমে কালাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের দুজনকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার সকাল ৯টায় রেজভীর বাবা আব্দুল আলিম মারা যান। নিহত আলিমের স্ত্রী তাছলিম বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

নিহতের চাচাতো ভাই তাইজুল ইসলাম বলেন, আমরা সবাই মিলে উদয়পুরের গ্রামতলা গ্রামে বসবাস করতাম। তিন বছর আগে আলিম আনিপুকুর বাজারে এসে নতুন বাড়ি করে বসবাস করছেন। প্রথম স্ত্রীর ছেলে রেজভী প্রায় জমির ভাগ নিতে বাড়িতে এসে বাবার সঙ্গে ঝগড়া-বিবাদ করত। রেজভী তার স্ত্রীকে নিয়ে গত সোমবার রাতে বাড়িতে এসে তার বাবাকে কুড়ালের কোপ দিয়ে পালিয়ে যান।

কালাই থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওয়াসিম আল বারী বলেন, জমাজমির ভাগ নিয়ে ছেলে তার বাবার গলায় কুড়াল দিয়ে কোপ মেরেছিল। সৎমা এগিয়ে আসলে তাকেও মারধর করা হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাবার মৃত্যু হয়েছে।

এ ঘটনায় নিহত আব্দুল আলিমের ভাই বাবলু ফকির বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেন। ঘটনার পর থেকে পালিয়ে থাকা নিহতের ছেলে রেজভী ও ছেলের স্ত্রী জান্নাতিকে সন্ধ্যার দিকে পাঁচবিবির শেকটা গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বরেন্দ্র এক্সপ্রেস/এফএস


মন্তব্য করুন:

সম্পর্কিত খবর