দেড় লাখ টাকা পরকিয়ার খেসারত দিলেন সেই চেয়ারম্যান

35

জয়পুরহাট: দেড় লাখ টাকা পরকিয়ার খেসারত দিলেন জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার আওলাই ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক

বিয়ের দাবিতে অনশনরত পরকিয়া প্রেমিকার হাতে নগদ এক লাখ টাকা ধরিয়ে বিদায় করেছেন তিনি।

বাকি ৫০ হাজার টাকা পরে দেয়ার প্রতিশ্রুতিতে এক সন্তানেন জননী ফারিয়া আখতার চুমকী (৩৮) ফিরে গেছেন স্বজনদের কাছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, বিয়ের দাবিতে ইউনিয়ন পরিষদে এতে উঠেছিলেন ওই নারী।

টের পেয়ে সেখান থেকে সটকে যান চেয়ারম্যান। পরে চেয়ারম্যানের বাড়ি গিয়ে অনশন শুরু করেন প্রেমিকা।

ঘটনা সামাল দিতে এগিয়ে আসেন চেয়ারম্যানের ঘনিষ্টজন ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম কাজী।

নিজ বাড়িতে উভয়পক্ষকে নিয়ে দেড় লাখ টাকায় বিষয়টি রফাদফা করেন আমিনুল। সেখানেই ওই নারীর হাতে ক্ষতিপুরণের এক লাখ টাকা তুলে দেন চেয়ারম্যান।

জানা গেছে, গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কামদিয়া গ্রামের সনি চৌধুরীর সাথে স্ত্রী ফারিয়া আখতার চুমকীর বনিবনা হচ্ছিলোনা।

স্বামীর বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ নিয়ে পূর্ব পরিচিত চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাকের কাছে আসেন চুমকি।

সমাধানের আশ^াস দিয়ে ওই নারীর সাথে ঘনিষ্টতা গড়ে তোলেন চেয়ারম্যান। বিয়ের আশ^াসে ওই নারীর সাথে শারীরিক সম্পর্কেও জড়ান।

ঘটনা জেনে গিয়ে স্বামী ওই নারীকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন। পরে চেয়ারম্যানের বাড়িতে গিয়ে ওঠেন প্রেমিকা।

তবে ঘটনাকে নাটক বলছেন ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম কাজী। তাছাড়া দেড় লাখ টাকায় বিষয়টি রফাদফা হবার কথাও নাকচ করেন তিনি।

তবে অভিযোগ পেলে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার আশ^াস দেন পাঁচবিবি থানায় ওসি মনসুর রহমান।

আপনার মন্তব্য