পাবনায় বজ্রপাতে দুই মাঝিসহ ৩ জনের মৃত্যু

11

পাবনা: পাবনার বেড়া ও সাঁথিয়া উপজেলায় বজ্রপাতে দুই মাঝিসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। বেড়া উপজেলার নাকালিয়ায় যমুনা নদীতে বজ্রপাতে নৌকার দুই মাঝির মৃত্যু হয়।

রোববার সন্ধ্যায় বজ্রপাতের এ ঘটনা ঘটলে রাত ৯টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঈমান আলী (৫০) নামের এক মাঝির মৃত্যু হয়। অপর বজ্রাহত সাইফুল ইসলামের (৩০) নদীতে সলিল সমাধি হয়েছে। ঈমান আলী রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে আর সাইফুল একই এলাকার মৃত সোলেমানের ছেলে।

এছাড়া রোববার রাতে পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার সাগরদাড়িয়া গ্রামে বজ্রপাতে আলমাছ হোসেন (৩০) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি ওই গ্রামের ইয়াকুব আলীর ছেলে। আলমাছ হোসেন রাত ১০টার দিকে গ্রামের পাশের ধলাই বিলে ৪-৫ জন প্রতিবেশীর সঙ্গে মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতের শিকার হন।

বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসিফ আনাম সিদ্দিকী স্থানীয়দের বরাত দিয়ে বলেন, একটি শ্যালো ইঞ্জিনচালিত নৌকা রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে নাকালিয়া বাজারের সামনে মাঝ যমুনায় পৌঁছালে বজ্র বৃষ্টি শুরু হয়। এ সময় বজ্রপাতে নৌকার মাঝি ঈমান আলী গুরুতর আহত হন।

অপরজন সাইফুল বজ্রাহত হয়ে যমুনা নদীতে তলিয়ে যান।স্থানীয়রা ঈমান আলীকে উদ্ধার করে বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে রাত ৯টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। স্থানীয়রা রাতে নৌকা নিয়ে ব্যাপক খোঁজাখুঁজি করেও সাইফুলকে খুঁজে পাননি।

পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার সাগরদাড়িয়া গ্রামে বজ্রপাতে আলমাছ হোসেন (৩০) নামের এক যুবক মারা গেছেন। রোববার রাতে বিলে মাছ ধরতে গেলে তিনি বজ্রপাতের শিকার হন। তিনি ওই গ্রামের ইয়াকুব আলীর ছেলে। নন্দনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যানন লিটন মোল্লা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

আপনার মন্তব্য