বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ বিল শিক্ষার্থীদের কাঁধে

8
বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ বিল শিক্ষার্থীদের কাঁধে

নাটোর: নাটোরের সিংড়ার উপজেলার লালোর উচ্চ বিদ্যালয়ে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে ফুঁসে উঠেছেন এলাকাবাসী। এসব অনিয়ম ও দুর্নীতি বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে লালোর উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে এ মানববন্ধনে এলাকার শত শত নারী-পুরুষ ও শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। মানববন্ধন চলাকালে এলাকাবাসীর পক্ষে বক্তব্য রাখেন- সোহেল রানা, রুবেল সরদার, সজল সরদার, আব্দুল্লাহ আল মামুন বাবু ও শিহাব হোসেন।

বক্তারা বলেন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের যোগসাজশে লালোর উচ্চ বিদ্যালয়ের পুকুর খনন ও লিজ দিয়ে টাকা আত্মসাৎ করছেন। এ বিষয়ে এলাকাবাসী জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক বলেন পুকুর লিজ দেয়া হয়নি।

অথচ লিজকারীরা পুকুরে মাছ ছেড়ে চাষাবাদ শুরু করছেন। কত টাকায় পুকুরটি লিজ দেয়া হয়েছে তাও জানানো হয়নি। এ নিয়ে গ্রামবাসী দুই দলে বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। বিদ্যালয়ের জায়গা বরাদ্দ দিয়ে সে অর্থ কি করা হচ্ছে তাও জানে না এলাকাবাসী। বিদ্যালয় ভবন নির্মাণকাজে ব্যাপক দুর্নীতি করা হয়েছে।

এদিকে, বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ বিল, ল্যাব ভাড়াসহ নানা কারণ দেখিয়ে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মাসে জনপ্রতি ৩০ টাকা ও ছাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি আরও ৩০ টাকা আদায় করা হয়।

এসব অনিয়ম ও দুর্নীতি বন্ধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন এলাকাবাসী। এছাড়া লালোর রাজবাড়ীর কাছে ১৪টি ভূমিহীন পরিবার প্রায় ৫০ বছর ধরে বাড়িঘর নির্মাণ করে বসবাস করে আসছেন। সম্প্রতি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তাদের উচ্ছেদের নোটিশ দিয়ে চাঁদা দাবি করেছেন। এসব ভূমিহীন পরিবার মানববন্ধনে ন্যায়বিচার চান।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে লালোর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহবুব হোসেন বলেন, ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে টাকা নেয়া হয়। পুকুর লিজ দেয়া হয়নি। আগামী রোববার নতুন করে পুকুর লিজ দেয়া হবে।

ভবন নির্মাণের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, বিদ্যালয়ের নিজস্ব তহবিল থেকে যথাযথ নিয়মে দোতলা ও তিনতলা ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। কোনো ধরনের অনিয়ম করা হয়নি।

আপনার মন্তব্য