সিরাজগঞ্জে হানিফে হানিফে সংঘর্ষ, নিহত ৩

56
ঈদযাত্রায় সড়কে ঝরেছে ২৪৭ প্রাণ

সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার সয়দাবাদ এলাকায় বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড়ে হানিফ পরিবহনের দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও ১০ জন আহত হয়েছেন।

বুধবার বিকেল ৪টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম সংযোগ সড়কের সয়দাবাদ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে নিহত ও আহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। তবে আহতদের সিরাজগঞ্জ শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ শহীদ আলম বলেন, যাত্রীবাহী হানিফ পরিবহনের বিপরীতমুখী দুটি বাস একই লেইনে ঢুকে পড়লে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে একজন এবং হাসপাতালে নেয়ার পর দুইজন মারা যান।

তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কার্যক্রম চালাচ্ছেন বলেও জানান ওসি সৈয়দ শহীদ আলম।

সিরাজগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক আবদুল হামিদ বলেন, বিকেলে হানিফ পরিবহনের একটি বাস উত্তরবঙ্গের দিকে যাচ্ছিল। সয়দাবাদ এলাকায় পৌঁছালে একই কোম্পানির ঢাকাগামী অপর একটি বাসের চালক রোড ডিভাইডার থাকা সত্ত্বেও ভুল রুটে ঢুকিয়ে দেন। এ সময় বাস দুটির মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

এতে ঘটনাস্থলে এক যাত্রী নিহত হন। সেই সঙ্গে আরও ১২ জন যাত্রী আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুইজন মারা যায়। আহতদের মধ্যে পাঁচজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলেও জানান তিনি।

এর আগে মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন প্রগতি সরণি এলাকায় সু-প্রভাত বাসের চাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থী আবরার আহাম্মেদ চৌধুরী নিহত হন।

পরে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা আট দফা দাবি ঘোষণা করেন। বুধবার সকাল থেকেও রাজধানীর বিভিন্ন প্রান্তে শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন চালিয়ে যান। বিকেলে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলামের সঙ্গে বৈঠক শেষে ২৮ মার্চ পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত করেন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

আপনার মন্তব্য