রাবিতে ফিস্টেল পামের জায়গায় রয়েল বোটল পাম

3

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) প্রশাসন ভবনের সামনের ৩৮টি পাম গাছের মধ্যে প্রায় ৩৫টি পাম গাছ কেটে ফেলে উন্নতজাতের রয়েল বোটল পাম গাছ লাগানোর প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন রাবি উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা।

রবিবার (১০ মে) দুপুর ১১টার দিকে তিনি সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেন উপ-উপাচার্য। তিনি জানান, ওই স্থানে ২৪ টি থুজা জাতের গাছও লাগানো হবে। পুরোনো গাছগুলো বয়সের ভারে শুকিয়ে ছত্রাক ধরায় কাটা হয়েছে। যার কারণে নতুনভাবে সেখানে গাছ লাগানো হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. আনন্দ কুমার সাহা বলেন, গাছগুলোর বয়স হওয়ায় ও ছত্রাকে আক্রান্ত থাকায়, দ্রæতই মারা যাচ্ছিল। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি প্রকল্প কমিটি হটিকাল স্পেশালিস্ট ও উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিশেষজ্ঞের পরামর্শে গাছগুলো কাটা হয়েছে।

দুই বছর ধরে বিশেষজ্ঞ টিম গাছগুলো ট্রিটমেন্ট করে রক্ষা করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু অপারগতায় পরে বিশেষজ্ঞ টিমের সহায়তায় গাছগুলো কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। নতুনভাবে আবার সেখানে রয়েল বোটল জাতের গাছ লাগানোর প্রস্তুতি চলছে।

তিনি আরো বলেন, কেটে ফেলা গাছগুলোকে বলে ফিস্টেল পাম যার আয়ুস্কাল ২৫ থেকে ৩০ বছর। মোট ৩৮টি ছিল তার মধ্যে ৩৫টি গাছ কর্তন করা হয়েছে। আর এই গাছগুলো নব্বই দশকের প্রথম দিকে লাগানো। এখন সেখানে রয়েল বোটল পাম লাগানো হবে যার আয়ুস্কাল ৭০ থেকে ৮০ বছর।

যা পূর্বের ফিস্টেল গাছের চেয়ে উন্নত ও সৌন্দর্য বর্ধনে সহায়তা করবে। আগামী জুন মাসেই সেখানে দুই সাড়িতে ১৮টি করে ৩৬টি বোটল পাম গাছ লাগানো হবে এবং তিন দিনের ভেতর থুজা জাতের ২৪টি গাছসহ পর্যায়ক্রমে মোট ৬০টি গাছ লাগানো হবে।

উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক গোলাম কবির বলেন, এ গাছগুলো আরও আগে কাটার প্রয়োজন ছিল। অধিকাংশ গাছই ছত্রাক আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। আমি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে এ ব্যাপারে অবহিত করেছিলাম। কারণ এক গাছ থেকে আরেক গাছে ছত্রাক ছড়াচ্ছিল। তাছাড়া এই গাছগুলোর কাঠেরও তেমন মূল্য নেই।’

আপনার মন্তব্য