অন্যের স্ত্রীকে নিয়ে উধাও যুবলীগ নেতা

36

দেশজুড়ে ডেস্ক: রুশিয়া বেগম (৩২) নামে দুই সন্তানের জননী এক গৃহবধূকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে রাসেল চাপরাশী নামে এক ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় রোববার (২৬ জানুয়ারি) সকালে ওই যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে প্রথমে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) ও পরে আদালতে মামলা করেছেন নিখোঁজ গৃহবধূর স্বামী মো. খলিলুর রহমান।

বরগুনার পাথরঘাটায় ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠেছে।এর আগেও একবার রুশিয়া বেগমকে নিয়ে পালিয়েছিলেন যুবলীগ সভাপতি রাসেল চাপরাশী। পরে পালানোর ছয় দিন পর রুশিয়া বেগমকে নিয়েই আবার প্রকাশ্যে আসেন তিনি।

অভিযুক্ত রাসেল চাপরাশী বরগুনার পাথরঘাটা পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের মরহুম মিন্টু চাপরাশীর ছেলে এবং পাথরঘাটা পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি। রাসেল চাপরাশীর বিরুদ্ধে মাদকসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পাথরঘাটার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে রুশিয়া বেগমের স্বামী মো. খলিলুর রহমানের করা মামলা সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি রাসেল চাপরাশীর সঙ্গে দুই সন্তানের জননী রুশিয়া বেগমের পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। সম্প্রতি রাসেল চাপরাশী রুশিয়া বেগমকে নিয়ে পাথরঘাটার পার্শ্ববর্তী উপজেলা তালতলী পালিয়ে ছিলেন।

ছয়দিন পালিয়ে থাকার পর তালতলী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রেজবী উল কবীর জোমাদ্দারের মধ্যস্থতায় দুই সন্তানের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে রুশিয়াকে ঘরে তুলে নেন স্বামী মো. খলিলুর রহমান। কিন্তু তারপরও পরকীয়ার টানে ফের রুশিয়া বেগমকে নিয়ে লাপাত্তা হয়েছেন রাসেল চাপরাশী।

এ বিষয়ে রুশিয়া বেগমের স্বামী মো. খলিলুর রহমান বলেন, আমার স্ত্রীকে ফুঁসলিয়ে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার জন্য রাসেল চাপরাশীকে আসামি করে মামলা করেছি। খবর পেয়ে রাসেল চাপরাশী আমার ঘরে এসে আসবাপত্র ভাঙচুর করেছে।

আমি মামলা তুলে না নিলে রাসেল আমাকে খুন করে মরদেহ গুম করার হুমকি দিয়েছে। আমাকে যে কোনো সময় রাসেল মেরে ফেলতে পারে। আমি এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

এ বিষয়ে ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি রাসেল চাপরাশী বলেন, আমি খলিলের স্ত্রীকে নিয়ে পালাইনি। তার স্ত্রী রুশিয়ার সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। সে এখন বরগুনার তালতলী উপজেলার তার বাবার বাড়ি সংলগ্ন পনু খলিফার কাছে আছে। আমার সম্মান ক্ষুণ্ন করার জন্য খলিল মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার চেষ্টা করছে।

এ বিষয়ে পাথরঘাটা থানা পুলিশের ওসি মো. শাহাবুদ্দিন জানান, পাথরঘাটা থানায় রাসেলের বিরুদ্ধে রুশিয়ার স্বামী খলিল প্রথমে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

পরে পাথরঘাটা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাও করেছেন। রাসেলের বিরুদ্ধে থানায় মাদকসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলেও তিনি জানান।

আপনার মন্তব্য