তালাক দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে স্বামীর গোপনাঙ্গ কাটার চেষ্টা গৃহবধূর

34


দেশজুড়ে ডেস্ক: পারিবারিক অশান্তি চরমে পৌঁছেছিলো। আর তাই স্ত্রীকে মৌখিক  তালাক দিয়েছিলেন ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার উত্তর কুশিয়ারা ইউনিয়নের কটালপুরে হাফেজ ময়নুল ইসলাম।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে স্বামীর গোপনাঙ্গ কেটে দেয়ার চেষ্টা করেন দুই সন্তানের জননী সুলতানা বেগম।

মঙ্গলবার ভোররাতে এই ঘটনার পর গুরুতর আহতাবস্থায় স্বামী হাফেজ ময়নুল ইসলামকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

আহত ময়নুল উপজেলার কটালপুর গ্রামের বাসিন্দা।

হাসপাতালে হাফেজ ময়নুল ইসলাম জানান, প্রায় ৬ বছর আগে তার সাথে বিয়ে হয় মোগলাবাজার থানার কলাগাঁও গ্রামের সুলতানা বেগমের। তাদের দুটি সন্তানও রয়েছে। 

বেশ কিছুদিন ধরে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ চলছিল। সোমবার ঝগড়ার একপর্যায়ে ময়না মিয়া স্ত্রী সুলতানা বেগমকে মৌখিকভাবে তালাক দেন। এর জেরে বাড়ির লোকজন সুলতানাকে আলাদা ঘরে থাকার নির্দেশ দেন। 

ভোররাতে সুলাতান বেগম উঠে স্বামী ময়না মিয়ার ঘরে ঢুকে ব্লেড দিয়ে তার গোপন অঙ্গ কাঁটার চেষ্টা করেন। এসময় ময়না মিয়ার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ফেঞ্চুগঞ্জ থানার ওসি আবুল বাসার মোহাম্মদ বদরুজ্জামান জানান, অভিযোগ পেয়েছেন।অভিযুক্ত স্ত্রীকে থানায় আনা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার মন্তব্য