বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় ব্যাবিলনের ঝুলন্ত উদ্যান

6
বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় ব্যাবিলনের ঝুলন্ত উদ্যান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ব্যাবিলনের বিস্তৃত মেসোপটেমীয় নগরীকে বিশ্ব ঐতিহ্য বলে ঘোষণা দিয়েছে জাতিসংঘের বিজ্ঞান, শিক্ষা ও সংস্কৃতিবিষয়ক সংস্থা ইউনেসকো।

শুক্রবার আজারবাইজানের রাজধানী বাকুতে বিশ্ব ঐতিহ্য কমিটির ভোটে প্রাচীন এই শহরকে বিশ্ব ঐতিহ্য বলে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে।

ইরাকের রাজধানী বাগদাদের ১০০ কিলোমিটার দক্ষিণে ফোরত নদীর তীরেই গড়ে উঠেছিল ব্যাবিলনীয় সভ্যতা।

চার হাজার বছরেরও বেশি সময় আগে সেখানে প্রাচীন ব্যাবিলনীয় সাম্রাজ্যের প্রাণকেন্দ্র ছিল এই শহর। ব্যাবিলনকে বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করতে গত তিন দশক ধরে চেষ্টা করে আসছিল ইরাক।

ইউনেসকোতে ইরাকি প্রতিনিধি বলেন, ব্যাবিলন ছাড়া বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকা কীভাবে তৈরি হতে পারে? প্রাচীন এই অধ্যায় বাদ দিয়ে কীভাবে মানবসভ্যতার ইতিহাসের কথা বলবো আমরা?

বসরার পুরাতত্ত্ব বিভাগের প্রধান কাহতান আল-আবিদ বলেন, প্রাচীন ইতিহাসে ব্যাবিলন হচ্ছে সবচেয়ে বড় জনবহুল শহর। লেখার দক্ষতা, প্রশাসন ও বিজ্ঞানের সভ্যতা ছিল ব্যাবিলনীয়দের।

বাইবেল, হিব্রু পাণ্ডুলিপি ও পৌরণিক ভবিষ্যকথনে ব্যাবিলন বিশেষ জায়গা দখল করে আছে। মন্দির পাঁচিল ঘেরা শহর- যেখানে মাটির ইট দিয়ে উঁচু টাওয়ার নির্মাণ করা হয়েছিল।

ঝুলন্ত উদ্যান, আশতার ফটক ও বাবেল টাওয়ারের জন্য এই শহরটি আন্তর্জাতিকভাবে বিখ্যাত।

আপনার মন্তব্য