বেকারত্ব-দুর্নীতি বিরোধী বিক্ষোভে ইরাকে নিহত ৯৩

26

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:  ইরাকে সরকারের দুর্নীতি বিরোধী চলমান বিক্ষোভে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৩ জনে।

গত পাঁচদিন ধরে আন্দোলন চালাচ্ছে দেশটির জনগণ। বিক্ষোভকারীদের অধিকাংশই তরুণ বলে জানা গেছে।

আল জাজিরা জানায়, বিক্ষোভ দমনে সরকারি নিরাপত্তা বাহিনী বিক্ষোভকারীদের ওপর জলকামান, টিয়ারগ্যাস এবং তাজা বন্ধুক ছুড়ছে।

দেশটির পার্লামেন্ট হিউম্যান রাইটস কমিশনের মতে, বাগদাদসহ দক্ষিণ ইরাকের শহরগুলোতে এখন পর্যন্ত ৯৩ জন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে কয়েকজন পুলিশ সদস্যও আছেন। আহত হয়েছে প্রায় ৪ হাজার মানুষ।

এদিকে সেনাবাহিনী জানিয়েছে, ‘অজ্ঞাত স্নাইপাররা’ বাগদাদে দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ চারজনকে গুলি করে হত্যা করেছে।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী আদেল আবদেল মাহদি বিক্ষোভকারীদের ‘বৈধ দাবি-দাওয়া’ মেনে নেওয়ার কথা বলেছেন। 

তবে তিনি সবাইকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। কিন্তু তার কথায় আশ্বস্ত হতে পারেনি বিক্ষোভকারীরা।

বেকারত্বের উচ্চ হার, সরকারি পরিষেবার শোচনীয় অবস্থা এবং অব্যাহত দুর্নীতির কারণে গত মঙ্গলবার দেশটিতে স্বতঃস্ফূর্ত বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

ক্ষমতা গ্রহণের এক বছরের মাথায় এই বিক্ষোভকে মাহদির ভঙ্গুর সরকারের জন্য প্রথমবারের মতো বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

সরকারের আহ্বান সত্ত্বেও দেশটির বড় শহরগুলোতে শুক্রবার বিক্ষোভ প্রদর্শন করে হাজার হাজার নাগরিক।

 রাজধানী বাগদাদসহ গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোতে কারফিউ জারি এবং ইন্টারনেট সেবা বন্ধ করেও বিক্ষোভ ঠেকানো যায়নি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, বিক্ষোভকারীরা বাগদাদের তাহরির স্কয়ারের দিকে যেতে চাইলে নিরাপত্তা বাহিনী তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। এতে কয়েকজনের মাথা এবং পেটে গুলি লাগে।

হাসপাতাল এবং নিরাপত্তা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার একদিনেই ১০ জন নিহত হয়। এদিন থেকে নিহতের সংখ্যা বাড়তে থাকে। একদিন পরেই সেই সংখ্যা অর্ধশতাধিক পার হয়ে যায়।

আপনার মন্তব্য