অপহরণের শিকার হয়ে রাজশাহীতে স্কুলছাত্রী!

27
অপহরণের শিকার হয়ে রাজশাহীতে স্কুলছাত্রী!

স্টাফ রিপোর্টার: গাজীপুর থেকে নিখোঁজ স্কুলছাত্রী মিতু আক্তার বর্ষাকে (১৪) রাজশাহী থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার রাত ৯টার দিকে নগরীর তালাইমারী এলাকার এক দোকানির সহায়তায় তাকে উদ্ধার করা হয়।

মিতু গাজীপুরের মাওনা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী। শ্রীপুর উপজেলার শান্তিনগরের মতিউর রহমানের মেয়ে। তাদের গ্রামের বাড়ি রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার দমদমা এলাকায়। 

উদ্ধারের সময় তার পরনে বিদ্যালয়ের ইউনিফর্ম ছিল। তবে সাথে বই না থাকায় ওই ছাত্রী বিদ্যালয়ের উদ্দেশ্যে বেরিয়েছিলো কিনা তা নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ। 

মিতু জানিয়েছে, বুধবার সকাল ৯টার দিকে বিদ্যালয়ে যাবার পথে শান্তিনগর এলাকা থেকে আরও দুই বান্ধবীর সঙ্গে তাকেও অপহরণ করে একদল দুর্বৃত্ত। চেতনা না থাকায় দিনভর বিষয়টি টেরই পায়নি সে।

রাতে রাজশাহী নগরীর তালাইমারী এলাকায় তাদের বহনকারী গাড়ি যানজটে পড়লে সুযোগ বুঝে নেমে পড়ে সে। পরে সেখানকার এক ওষুধ বিক্রেতা তাকে নগরীর মতিহার থানায় পৌঁছে দেন।

বর্তমানে ওই ছাত্রী নগর পুলিশের ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রয়েছে। সেখানকার পরিদর্শক পলি দাশ এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত ওই ছাত্রীকে কয়েক দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। পুলিশকে একেক সময় একেকরকম তথ্য দিচ্ছে সে। তাকে অপহরণ করা হয়েছিলো এমন তথ্যের ভিত্তিতে তদন্ত করেছে পুলিশ। 

তবে আদতেই সে অপহৃত হয়েছিলো কি না সেটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, দুপুরের দিকে পরিবারের সদস্যরা শ্রীপুর থেকে রাজশাহীর উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। তারা এলেই পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে। এরই মধ্যে পুঠিয়ায় থাকা স্বজনরা এসে ওই ছাত্রীর সঙ্গে দেখা করে গেছে।

এ বিষয়ে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, ওই ছাত্রী পুলিশকে জানিয়েছে, একটি সাদা হাইয়েস মাইক্রোবাসে করে সেসহ তিন ছাত্রীকে অপহরণ করা হয়। পুলিশ মাইক্রোবাসটির সন্ধানে তৎপরতা শুরু করেছে।

এদিকে, গাজীপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) শামসুন্নাহার জানিয়েছেন, একই সঙ্গে অপহরণ করা হয়েছে বলে আরও যে দুই ছাত্রীর নাম বলেছে মিতু সেই নামে তার ক্লাসে কোনো শিক্ষার্থী নেই। তাছাড়া বুধবার বিদ্যালয়ের উদ্দেশে বই ছাোই বের হয় মিতু। এসব বিষয় খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

আপনার মন্তব্য