পুঠিয়ায় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চলছে পুকুর খনন

0
পুঠিয়ায় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চলছে পুকুর খনন

স্টাফ রিপোর্টার, পুঠিয়া: রাজশাহীর পুঠিয়ায় আদালতের নিষেধাজ্ঞাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে বিশেষ সমঝোতায় চলছে বিভিন্ন স্থানে পুকুর খনন কাজ। গত বছর মহামান্য হাইকোট পুঠিয়া উপজেলা জুড়ে কৃষি জমিতে পুকুর খনন বন্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করলেও তা মানছেন না কেও।

অভিযোগ উঠেছে এক শ্রেণীর মৎস্য ব্যবসায়ীরা স্থানীয় প্রশাসন ও রাজনৈতিক দলের নেতাদের মদদে রাতা-রাতি পুকুর খনন কাজ করছেন। মাত্ররিক্ত পুকুর খননের ফলে এই অঞ্চলে বিভিন্ন ফসলী জমি দ্রুত কমে যাচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিস সূত্রে জানা গেছে, জনস্বার্থে মহামন্য হাইকোটে গত বছর ২৪৭৬/২০১৯ নম্বরে একটি রীট আবেদন করা হয়। ওই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত গত ১০/০৩/২০১৯ ইং কৃষি জমির শ্রেণী পরিবর্তন বা পুকুর খনন না করতে আদেশ দেন। পাশাপাশি কোথাও পুকুর খনন কাজ চললে উপজেলা প্রশাসনকে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে নিদের্শ দেয়া হয়। এরপর পুকুর খনন বন্ধে উপজেলা প্রশাসন গত বছর ২৮ মার্চ একটি স্বারকে যার নং-০৫.৪৩.৮১৮২.০০০.১৬.০১৫.১৮-৩৬৫(১০) গণ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন।

চলতি বছরের শুরুতে উপজেলার কয়েকটি স্থানে পুকুর খনন কাজ করছিল মৎস্যচাষীরা। খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসন স্কেভেটর অকেজ করে দেয়া হয়। অপরদিকে শ্রমিক দিয়ে খননকৃত একাধিক পুকুর মালিকদের জেল-জরিমানা করা হয়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, উপজেলার শিলমাড়িয়া, ভালুগাছি, জিউপাড়া ও বেলপুকুর এলাকায় ধাপে ধাপে পুকুর খনন কাজ চলছে। প্রভাবশালী মৎস্য ব্যবসায়ীরা প্রথমে বেশী টাকার লোভ দেখায়ে কৃষকদের সাথে বছর ভিক্তিক চুক্তি করেন। তারা ফসলী জমিতে পুকুর খনন করতে স্থানীয় পুলিশ-প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতাদের সাথে বিশেষ চুক্তি করছেন। এরপর কোনো কোনো মৎস্যচাষী স্কেভেটারের মাধ্যমে খনন করছেন।

আবার অনেকেই শ্রমিক দিয়ে পুকুর খনন কাজ করাচ্ছেন। অনেক মৎস্য ব্যবসায়ীরা বিলের পানি প্রবাহের স্থান বন্ধ করে বড় বড় দিঘি কাটছেন। এলাকায় যত্রতত্র ভাবে পুকুর খনন করায় কৃষকরা বছরের বেশীর ভাগ সময় বিলে পানি বন্দি থেকে। এতে করে কৃষকদের প্রতিবছর লক্ষ লক্ষ টাকার ফসলহানী ঘটছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ওলিউজ্জামান বলেন, উপজেলার যেখানে পুকুর খননের কাজ হচ্ছে আমি সেখানে গিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করছি। তবে পুকুর খননে অনেকই মহামান্য হাইকোটের নিদের্শনা কাগজপত্র নিয়ে আসলে সেখানে আমাদের কিছুই করার থাকে না।

আপনার মন্তব্য