রাজশাহীতে শেখ কামাল আইটি সেন্টার উদ্বোধন

0
রাজশাহীতে শেখ কামাল আইটি সেন্টার উদ্বোধন

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কের শেখ কামাল আইটি ইনকিউবেশন অ্যান্ড ট্রেনিং সেন্টার উদ্বোধন হয়েছে। বুধবার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এর উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রাজশাহীতে এই ট্রেনিং সেন্টারের নিচতলায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন ছিলো। ভিডিও কনফারেন্সে ওই অনুষ্ঠানে সংযুক্ত হন  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

ট্রেনিং সেন্টারের উদ্বোধনের পর রাজশাহীবাসীকে অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী। 

তিনি বলেন, এই ট্রেনিং সেন্টার থেকে ছেলে-মেয়েরা যে ট্রেনিং নেবে তার মাধ্যমে তারা নিজেদের দক্ষ করে গড়ে তুলতে পারবে। তারা চাকরি নেবে না, চাকরি দেবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ছেলে-মেয়েদের আইটিতে দক্ষ করে তুলতে আমরা বাজেটে আলাদা ফান্ড রেখে দিয়েছি। তাছাড়া কর্মসংস্থান ব্যাংক ও এসএমই’র মাধ্যমে টাকা দিয়েও আমরা সুযোগ করে দিচ্ছি।

অনুষ্ঠানে একজন নারী উদ্যোক্তা এবং রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর সঙ্গেও কথা বলেন। রাজশাহীতে এ ধরনের প্রকল্প বাস্তবায়ন করায় তারা প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। 

অনুষ্ঠান সঞ্চালক ছিলেন রাজশাহীর জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, শিল্প-কারখানায় পিছিয়ে পড়া রাজশাহীতে তথ্য-প্রযুক্তিনির্ভর এই হাইটেকপার্ক স্থাপন করায় এ শহরের মানুষ উচ্ছ্বসিত। এনিয়ে রাজশাহীবাসীর তরফ থেকে কৃতজ্ঞতাও জানান।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকার, বিভাগীয় কমিশনার হুমায়ুন কবীর খোন্দকার, সাবেক প্রতিমন্ত্রী জিনাতুন নেসা তালুকদার, নগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শাহীন আকতার রেনী, সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মোকবুল হোসেন, রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, রাজশাহী নগরীর জিয়ানগর এলাকায় ৩১ দশমিক ৬৩ একর এলাকাজুড়ে গড়ে উঠছে বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক। এই প্রকল্পে ব্যয় হচ্ছে ২৮১ কোটি ১৯ লাখ টাকা। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে এই প্রকল্প অনুমোদন দেয় একনেক। এরপর ২০১৭ সালের ১৮ জুলাই  শুরু হয় নির্মাণকাজ।

অনুমোদিত প্রকল্প অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালির আদলে নির্মাণাধীন পার্কটির দু’টি অংশ থাকবে। মূল পার্কটি হবে ১০ তলা বিশিষ্ট এবং পাশে ৬২ হাজার বর্গফুট আয়তনের পাঁচতলা বিশিষ্ট ইনকিউবেটর কাম ট্রেনিং সেন্টার। প্রধানমন্ত্রী এই ট্রেনিং সেন্টারেরই উদ্বোধন করলেন।

 হাইটেকপার্কের পুরো প্রকল্পের ৬০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। পুরো কাজ শেষে এখানে ১৪ হাজার তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান হবে। আগামী বছরের জুন মাসের মধ্যেই সব কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে

আপনার মন্তব্য