কেনো দিল্লির গ্যাস চেম্বারে টিম টাইগার?

46
কেনো দিল্লির গ্যাস চেম্বারে টিম টাইগার?

খেলাধুলা ডেস্ক: স্বাভাবিক মাত্রার চেয়ে চারশ’ শতাংশের বেশি বায়ু দূষণ ভারতের নয়াদিল্লিকে।

দিল্লিকে ‘গ্যাস চেম্বার’ হিসেবে অ্যাখা দিয়েছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী অরিবন্দ কেজরিওয়াল। থমকে গেছে সেখানকার জনজীবন।

এই পরিস্থিতিতে রোববার দিল্লির মাঠে গড়াচ্ছে বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচ। মাস্ক পরে সেখানে অনুশীলনে দেখা গেছে ক্রিকেটারদের।

এমন পরিস্থিতিতে কেন বিসিবি এই ভেন্যুতে খেলতে আপত্তি জানায়নি? তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিশ্লেষকরা।

দিল্লিতে দূষণের মাত্রা এতটাই যে, নিঃশ্বাস নিতেও যেন কষ্ট হচ্ছে।। এমনকি এখানকার স্কুলও বন্ধ ঘোষণা করেছেন সুপ্রিম কোর্টের নিয়োজিত প্যানেল। 

দিল্লির অরুন জেটলি স্টেডিয়ামের বাইরে ম্যাচের আগের দিন সকাল থেকে হঠাৎ তৎপরতা। ধুলাবালির আগ্রাসন রোধে মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের চেষ্টা। 

কিন্তু দূষণের সমুদ্রে এ তো সামান্যই। কেন এই মাত্রাতিরিক্ত দূষণ, জানা গেলো এক ভারতীয় সাংবাদিকের কাছে।

ভারতীয় সাংবাদিক বলেন, ‘প্রচুর জমি জ্বালিয়ে দিচ্ছে, পাঞ্জাব হরিয়ানার সেই ধোঁয়াগুলো এদিকে চলে আসছে।’

এর মাঝেই ক্রিকেটের লড়াইয়ে ভারতের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ। ঝুঁকিতে ক্রিকেটাররা।। এই পরিস্থিতিতে কেনো এখানে ম্যাচ আয়োজন? কেনো কোনো আপত্তি জানায়নি বিসিবি?

সিনিয়র ক্রীড়া সাংবাদিক বর্ষণ কবির বলেন, ‘হয়তো বিসিবি ভেবেছে এতদিন পরে একটা পূর্ণাঙ্গ ট্যুর পেয়েছি এখন যা বলে তাই মেনে নিই।’

স্টেডিয়াম এলাকা পরিদর্শনে এসেছিলেন সাউথ দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। তারা জানিয়েছেন, আগামী দুই দিনের কর্মপরিকল্পনা।

সাউথ মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের ডেপুটি কমিশনার আমান গুপ্তা বলেন, ‘ম্যাচ উপলক্ষে  দূষণ রোধে স্টেডিয়াম এলাকা বাড়তি নজরদারিতে রাখা হচ্ছে। 

বাড়তি পরিচ্ছন্নতা কর্মীর পাশাপাশি ১০টি পানির ট্যাঙ্ক মোতায়েন করা হয়েছে। আমরা আশা করছি ম্যাচে খুব একটা সমস্যা হবে না।’

যদিও স্থানীয়দের মতে, শিগগিরই বদলাবে না পরিস্থিতি।

আপনার মন্তব্য